ইছাপুরে যুবক খুনের ঘটনা ঘিরে দানা বাঁধছে রহস্য

বারাকপুর: ইছাপুরে যুবক খুনের ঘটনায় ধন্দ বাড়ছে পুলিশের৷ একদিকে যেমন অভিযোগ উঠছে পুরানো শত্রুতার জেরে খুন করা হয়েছে জয়ন্ত সরকারকে৷ অন্যদিকে এমন জল্পনাও শোনা যাচ্ছে, এক ব্যবসায়ীকে খুনের চেষ্টা করেছিল দুষ্কৃতীরা৷ কিন্তু সেই লক্ষ্য ভ্রষ্ট হয়ে জয়ন্তর গায়ে লাগে৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ৷ উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুর রামনগরের এই ঘটনায় বাড়ছে জল্পনা৷

আরও পড়ুন: তিতলির ডানা মেলল বাঁকুড়াতেও, চিন্তার মেঘ পুজোয়

বছর ২৬’র জয়ন্ত সরকার পেশায় টোটো চালক ছিলেন৷ বুধবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ বাড়ি ফিরছিলেন তিনি৷ অভিযোগ, পথে তাঁর সঙ্গে দেখা হয় মোটা অভির৷ যে এলাকায় কুখ্যাত দুষ্কৃতী হিসাবেই পরিচিত বলে জানা গিয়েছে৷ দু’জনের মধ্যে পুরানো কোনও বিবাদ নিয়ে বচসাও হয় বলে সূত্রের খবর৷ অভিযোগ, এরপরই আচমকা বন্দুক বের করে দুষ্কৃতী অভি জয়ন্তকে পিছন থেকে এক রাউন্ড গুলি করে৷ মাটিতে জয়ন্ত লুটিয়ে পড়লে ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দেয় অভিযুক্ত৷

- Advertisement -

ঘটনার পরে প্রায় দশ মিনিট ঘটনাস্থলে পড়ে ছিলেন গুলিবিদ্ধ জয়ন্ত৷ তাঁর বাবা ও স্থানীয় বাসিন্দারা জয়ন্তকে টোটোয় করে হাসপাতালে নিয়ে যান৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন নোয়াপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক সুনীল সিং৷ তিনিই জয়ন্তকে টোটোয় করে নিজের গাড়িতে তুলে নেন৷ বিএন বসু মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসেন৷ কিন্তু শেষ রক্ষা করা যায়নি৷ ডাক্তারা জয়ন্তকে মৃত বলে ঘোষণা করেন৷

স্থানীয় সূত্রের খবর, এর আগেও দু’জনের মধ্যে ঝামেলা হয়েছিল৷ নোয়াপাড়া থানার পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেছে৷ যদিও স্থানীয় ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎ দাস বলেন, জয়ন্ত অভির দলেরই লোক৷ অভির টার্গেট জয়ন্ত ছিল না৷ তাঁর কথায়, ‘‘জয়ন্ত সরকার নামের যে যুবক গুলিবিদ্ধ হয় সেও কুখ্যাত দুষ্কৃতী৷ অভির সঙ্গে ওই এলাকায় এসে মদ্যপ অবস্থায় গুলি চালিয়ে এলাকায় সন্ত্রাস চালাচ্ছিল অভি, জয়ন্তরা৷ সেই সময় আমার বাড়ির সামনের একটি আয়না ভেঙে দেয় দুষ্কৃতীরা৷ এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে আমাকে লক্ষ্য করে গুলি করে অভি৷ সেই সময় কথা কাটাকাটি করতে গিয়ে সামনে জয়ন্ত চলে এলে গুলিটি জয়ন্তর পিঠের নিচে লাগে৷’’

আরও পড়ুন: BREAKING- কপ্টার দুর্ঘটনায় প্রাণে বাঁচলেন নজরুল গীতি গায়িকা ফেরদৌস

স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য, রামনগর মাঠের মধ্যে প্রায় তিন রাউন্ড গুলি চালায় ওই দুষ্কৃতীরা৷ তারপর এলাকায় এসে ২-৩ রাউন্ড গুলি করে তারা৷ তার মধ্যেই একটি জয়ন্তর শরীরে লাগে৷ এলাকায় একাধিক মানুষকে বন্দুক ঠেকিয়ে খুনের হুমকি দিয়ে টাকা চাওয়া, মস্তানি করার অভিযোগ রয়েছে এই সমাজবিরোধী দলের বিরুদ্ধে৷

নোয়াপাড়ার বিধায়ক সুনীল সিং জানান, ‘‘অভি নামে অভিযুক্ত এই যুবকের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক অভিযোগ উঠেছে৷ থানায় আমি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে ওর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করিয়েছি৷ আমি চাই পুলিশ আইন অনুয়ায়ী পদক্ষেপ নিক৷ আমি আমার নেত্রী সকলেই আমরা সমাজ বিরোধীদের বিরুদ্ধে৷’’

এদিকে এই খুনের কারণ নিয়ে ধন্দে রয়েছে পুলিশ৷ ব্যবসায়ী বিশ্বজিৎকে মারতে গিয়েই এই খুন নাকি ইচ্ছে করেই জয়ন্তকে খুব কাছ থেকে গুলি করে এই খুন করা হয়েছে তা স্পষ্ট হয়নি পুলিশের কাছে৷ পলাতক অভির খোঁজ শুরু করেছে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ৷

আরও পড়ুন: ব্যানার্জী বাড়ির দুর্গার সঙ্গে থাকে না সিংহ, অসুর

Advertisement
----
-----