ঋতব্রতর বিরুদ্ধে ফের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ নম্রতা

স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট : ফের পুলিশের দ্বারস্থ হলেন নম্রতা দত্ত৷ তাঁর অভিযোগ, আগাম জামিন পাওয়ার পর ফের স্বমহিমায় ফিরেছেন সিপিএম থেকে বহিষ্কৃত রাজ্যসভার সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এবার হোয়াটস অ্যাপ কলের মাধ্যমে তাঁকে হুমকি দেওয়া শুরু হয়েছে৷ তাঁকে আর কী কী করা হয়, তা দেখার জন্য অপেক্ষায় থাকতে বলা হয়েছে৷

নম্রতার দাবি, এর পর তিনি ভয় পাচ্ছেন৷ তাই তিনি সিআইডির সঙ্গে যোগাযোগ করেন৷ রাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকরাই তাঁকে এ নিয়ে বালুরঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করতে বলেন৷ সেই মতো রবিবার সকালে বালুরঘাট থানায় ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর বান্ধবী দুর্বা সেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন৷ যে নম্বরগুলিতে ফোন এসেছিল, সেগুলিও পুলিশকে জানিয়েছেন নম্রতা৷ তাঁর সন্দেহ এর পিছনে ঋতব্রত ও দুর্বাই রয়েছে৷

প্রসঙ্গত, এই নম্রতাই এর আগে ঋতব্রতর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছিলেন৷ সিপিএম থেকে বহিষ্কৃত ওই সাংসদ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁকে ধর্ষণ করেছিল বলেও তিনি অভিযোগ করেছিলেন৷ সেই অভিযোগের তদন্ত করছে সিআইডি৷ সেই ঘটনায় দু’বার ঋতব্রতকে নোটিশ দিয়েছেন গোয়েন্দারা৷ কিন্তু তাঁদের সামনে হাজির হননি রাজ্যসভার ওই সাংসদ৷ বরং এই ইস্যুতে দ্বিমুখী কৌশল নিয়েছেন তিনি৷ একদিকে সময় চেয়ে নিয়েছেন সিআইডির কাছ থেকে৷ অন্যদিকে বালুরঘাট আদালত থেকে নিয়েছেন আগাম জামিন৷

- Advertisement -

তবে এই ঘটনায় সিআইডির তদন্ত সমান গতিতেই চলছে৷ ইতিমধ্যে নম্রতার বয়ান সিআইডি রেকর্ড করেছে৷ তাঁকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ ওঠায় ঋতব্রতর বর্তমান বান্ধবী দুর্বা সেন ও মুকুল ঘনিষ্ঠ কেন্দ্রীয় সরকারি আধিকারিক অর্চনা মজুমদারকে জেরা করেছে সিআইডি৷ তারই মধ্যে এই ঘটনা নতুন মোড় নিল৷

নম্রতার দাবি, ৩ নভেম্বর বালুরঘাট আদালতে ঋতব্রত আগাম জামিন পাওয়ার পরই হোয়াটস অ্যাপে প্রথম ফোনটি আসে৷ প্রথমবার তাঁকে জানানো হয় যে, তাঁর অ্যাকাউন্টে আট লক্ষ টাকা জমা হয়ে গিয়েছে৷ পরে ঋতব্রতর আগাম জামিনের বিষয়টি উল্লেখ করে বলা হয়, এবার তাঁকে কী কী করা হয়, তা দেখার জন্য অপেক্ষায় থাকুন৷ এর পরও বেশ কয়েকবার তাঁকে হোয়াটস অ্যাপ কলের মাধ্যমের হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে নম্রতার অভিযোগ৷ নম্রতার অভিযোগ, গত ৩নভেম্বর আগাম জামিন মঞ্জুর করতে গিয়ে আদালত নির্দেশ দিয়েছিল যে, ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায় অভিযোগকারিণীকে মোবাইলে ফোন করে বা অন্য কোনওভাবে প্রভাবিত অথবা ভীতি প্রদর্শন করতে পারবেন না৷ ফলে আদালতের সেই নির্দেশ অভিযুক্ত মানছেন না বলে তাঁর দাবি৷

এদিন নম্রতা জানান, ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায় প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে ১৫ অক্টোবর তাঁকে বিয়ে করবেন। অথচ আগামী ১৫ নভেম্বর বিয়ে করার জন্য রেজিস্ট্রি অফিসে ঋতব্রত ​ও দূর্বা সেন ​আবেদনও করেছেন। এক্ষেত্রেই তাঁর সাথে ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায় ​প্রতারণা করেছেন।

Advertisement ---
-----