দেড় ঘণ্টার ‘পাওয়ার প্যাক্ট’ ভাষণে বিরোধীদের তুলোধনা করবেন মোদী

নয়াদিল্লি: লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে দিল্লির রামলীলা ময়দানে দাঁড়িয়ে দলীয় কর্মীদের বার্তা দিলেন নরেন্দ্র মোদী।

শনিবার যেসব বার্তা দিলেন নরেন্দ্র মোদী:

১. ভারতকে দুনিয়ার সবথেকে গৌরবশালী দেশ বানাতে চাই। স্বাধীনতার পর যদি সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল প্রধানমন্ত্রী হতেন। তাহলে দেশের চেহারাটা অন্যরকম হত।

২. অটল বিহারী বাজপেয়ী যদি প্রধানমন্ত্রী থেকে যেতেন, তাহলেও দেশের চেহারাটা অন্যরকম হত।

৩. নরেন্দ্র মোদী দেখিয়েছেন কেলেঙ্কারি ছাড়া কীভাবে দেশ চালানো যায়।

৪. উচ্চবর্ণের জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ সাধারণ গরিব মানুষকেই সাহায্য করবে।

৫. কৃষক স্বার্থে স্বামীনাথন কমিটির সুপারিশ আমরা লাগু করেছি। দেড় গুন বেশি সহায়ক মূল্য পাচ্ছে কৃষকরা।

৬. ভারতীয় খেলোয়াড়দের মধ্যেও পজিটিভ অ্যাটিটিউড লক্ষ্য করা গিয়েছে। দেশের সম্মানের কথা ভেবে খেলছে তারা। কংগ্রেস কৃষকদের ভোট ব্যাংক বানিয়েছিল।

৭. ক’টা যোজনা আছে, যেটা মোদীর নামে?

৮. আমাদের শেখানো হয়েছে নিজের থেকে বড় দল, দলের থেকে বড় দেশ।

৯. বলছি না যে সবকিছু করতে পেরেছি। তবে সৎ ভাবে করার চেষ্টা করেছি।

১০. কংগ্রেস দেশের সঙ্গে দশকের পর দশক বিশ্বাঘাতকরা করে গিয়েছে।

১১. কেউ যদি জেগে ঘুমোয়, তাহলে ঘুম ভাঙানো মুস্কিল। খালি বস্তার এক দাম, বস্তার মধ্যে চাল-গম ভরা থাকলে তার আর এক দাম। এটা অল্পশিক্ষিতেরাও বুঝবেন। (রাফায়েল প্রসঙ্গে)

১২. ১৯৪৭ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত ভারতের ১৮ লক্ষ কোটি ঋণ ছিল। ২০০৮ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত সেই ঋণ বেড়ে হয়েছে ৫২ লক্ষ কোটি। স্বাধীনতার প্রথম ৬০ বছরে ১৮ লক্ষ কোটি ঋণ ছিল। ইউপিএ জমানায় সেই ঋণ আরও ৩৪লক্ষ কোটি বেড়ে গেল।

১৩. জানেন কীভাবে এটা হয়েছে? ব্যাংক থেকে স্বাভাবিক পদ্ধতিতেও লোন নেওয়া যেত। কংগ্রেস পদ্ধতিতেও লোন নেওয়া যেত। কংগ্রেস পদ্ধতিতে যারা লোন পেত, তারা ব্যাংক থেকে একটা ফোনেই হাজার কোটি কোটি টাকা লোন পেত। আর সাধারণ মানুষ বাড়ি বানানোর জন্য ১০ লক্ষ টাকা লোন পেতেও কষ্ট করতে হত।

১৪. মনে রাখবেন চৌকিদার থেমে থাকবে না। দেশ-বিদেশে যেখানেই এসব চোরেরা থাকে, তাদের টেনে আনবে।

১৫. আমাদের বিরোধীরা জোট বাঁধছে। যাদের জন্ম হয়েছিল কংগ্রেসের বিরোধিতা করার জন্য, তারা এখন কংগ্রেসের হাত শক্ত করতে চাইছে। দেখেছেন তো তেলেঙ্গানায় কী হয়েছে? কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, ‘আমি তো ক্লার্ক’।

১৬. ভারতবাসী মজবুত সরকার চায়। ভারতীয় সেনা মজবুত সরকার চায়। ভারতীয় কৃষক মজবুত সরকার চায়।

---- -----