জাতীয় পরিবহণ দফতর সূত্রে খবর, নর্দান রেলওয়েতে এ বছর প্রায় ১৪০০ পুরুষকে ট্রেনের মহিলা কামরায় ওঠার অপরাধে গ্রেফতার করেছে রেলওয়ে পুলিশ। বর্তমানে ২২০টি ট্রেনে প্রহরা দেয় রেলওয়ে পুলিশ ফোর্স। পাশাপাশি এ বছর প্রায় ৬১,২১১ জনকে রেলওয়ের বিভিন্ন ধারায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুধুমাত্র অপরাধীদের জরিমানা বাবদ যে অর্থ ভারতীয় রেলের হাতে উঠে এসেছে তার পরিমাণ নয় নয় করে প্রায় দেড় কোটি।

আরও পড়ুন: মরণোত্তর শৌর্য চক্র পাচ্ছেন কাশ্মীরের জওয়ান ঔরঙ্গজেব

Advertisement

সূত্রের খবর, ২০১৮ র জুলাই মাস পর্যন্ত ২৫০ জনের বিরুদ্ধে সরাসরি যাত্রীদের সাথে কোনো অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকায় ভারতীয় দণ্ডবিধি আইপিসি ধারায় মামলা রুজু করে রেল পুলিশ। এরপর তাদের গভর্মেন্ট রেলওয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: মেডিক্যালের চিকিৎসকের ‘ভুল’, শিশুর বাঁ পায়ের বদলে ডান পায়ে অস্ত্রোপচার

রেলমন্ত্রী ২০১৮ সালটিকে ‘নারী ও শিশু নিরাপত্তা’র বছর হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। এই উদ্দেশে ‘ভৈরবী’ ও ‘বীরাঙ্গনা’ নামে দুটি মহিলা রেল পুলিশের বিশেষ টিম তৈরি করেছেন। তিনি আরও বলেন, চলতি বছরে ১,৩৮৪জন পুরুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে মহিলা কামরায় যাতায়াত করার অপরাধে। গ্রেফতার হওয়া ৪৮৪জনের কাছ থেকে রেলের প্রায় ২৫,৫২,১০১ টাকার সম্পত্তি (আইনবিরুদ্ধ সম্পত্তি ধারায়) উদ্ধার করা গিয়েছে৷

আরও পড়ুন: ‘মমতার কারণেই আক্রান্ত হতে পারেন অসমের বাঙালিরা’

এই বছর জুলাই মাস পর্যন্ত ২১৩৭ জন শিশুকে রেল পুলিশ উদ্ধার করে। তাদের মধ্যে ২২১জন কন্যাসন্তান। তাদের প্রত্যেককে রেলওয়ে পুলিশ বিভিন্ন সমাজসেবী সংস্থার হাতে তুলে দিয়েছে যাতে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া যায়৷ এছাড়া রেল পুলিশের হেল্পলাইন নম্বর ১৮২ সর্বক্ষণ মানুষকে সহায়তা দেওয়ার জন্য খোলা আছে।

----
--