এশিয়াডে দুই ভারতীয় অ্যাথলিটকে নিয়ে গুজব

জাকার্তা: চলতি এশিয়াডে তাঁদের দু’জনকে নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে৷ টুর্নামেন্টের মাঝে তাঁরা নাকি লুকিয়ে প্রেম করছেন৷ জাকার্তায় অষ্টাদশ এশিয়াডের নবম দিনে সেই জল্পনা আরও একটু উসকে দিল৷ কিন্ত দু’জনেই একে গুজব বলে উড়িয়ে দিলেন৷

সোমবার টুর্নামেন্টের নবম দিনে জ্যাভলিন থ্রোতে সোনা জিতে ইতিহাস গড়েছেন ভারতের নীরজ চোপড়া৷ তাঁর সোনা জয়ের পরই আবেগঘন টুইট আরেক সোনাজয়ী ভারতীয় অ্যাথলিট ভিনেশ ফোগাতের৷ টুইটে সোনাজয়ী কুস্তিগীর লিখেছেন, ‘কামাল করেছে নীরজ৷ ফাইনালে পারফরম্যান্স করতে হলে নীরজের মতোই করা উচিত৷’ এর আগের টুইটে নীরজের জাতীয় রেকর্ড ভাঙা নিয়ে ভিনেশ লেখেন, ‘ফাইনালের মতো বড় মঞ্চে পারফরম্যান্স করা আর জাতীয় রেকর্ড ভাঙার কায়দা, তোমার থেকে শেখা উচিত৷’

এদিন তৃতীয় প্রচেষ্টায় ৮৮.০৬ মিটার দূরত্বে জ্যাভলিন ছোঁড়েন নীরজ৷ জাতীয় রেকর্ড ভেঙে দেশকে সোনা এনে দিলেও অল্পের জন্য এশিয়াড়ের রেকর্ড ভাঙতে পারেননি চোপড়া৷ মাত্র ১.০৯ মিটার থেকে দূরে থেমে যান ভারতীয় এই অ্যাথলিট৷ তবে কেরিয়ারে এদিন নিজের সেরা পারফরম্যান্স করেন হরিয়ানার এই জ্যাভলিন থ্রোয়ার৷

নীরজের সোনা জয়ের পরই টুইট করে তাঁকে অভিনন্দন জানান ভিনেশ৷ এই টুইটের পরই জল্পনা তুঙ্গে৷ এর আগে কুস্তিতে ভিনেশের ফাইনাল ম্যাচ দেখতে গিয়েছিলেন নীরজ৷ ঠিক এক সপ্তাহ আগে মেয়েদের কুস্তির ফাইনালে জাপানি খেলোয়াড় যুকি ইরে-কে হারিয়ে সোনা জেতেন ভিনেশ৷ সেই ম্যাচ স্টেডিয়ামে বসে দেখেছিলেন নীরজ৷ সেই ঘটনার পরেই এক হিন্দি দৈনিকে লেখা হয়, এশিয়ান গেমস নীরজ ও ভিনেশ পরস্পরকে কাছে এন দিল৷ পরে সেই সংবাদপত্রের কাট-আউটের ছবি পোস্ট করে ভিনেশ আবার লেখেন, ‘আর পাঁচটা অ্যাথলিটের মতোই নীরজও আমার সার্পোট করেছে৷ এই নিয়ে ভুল বার্তা দেওয়া হচ্ছে৷ যেটা কোনভাবেই কাম্য নয়৷’

তার পরই তাঁর এনগেজমেন্টের কথা জানিয়ে দেন ফোগত৷ কুস্তির আখড়ায় তাঁর প্রাক্তন সতীর্থ সমবীর রাথিকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নেন এশিয়াড়ে সোনাজয়ী প্রথম ভারতীয় মহিলা ফোগত৷ জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জজয়ী কুস্তিগীর সমবীর এখন নর্দান রেলওয়ের ট্রেন টিকিট পরীক্ষকের চাকরি করছেন৷

The best decision I ever made! Glad you pinned me for life ????❤️

A post shared by Vinesh Phogat (@vineshphogat) on

হিন্দি দৈনিকের সেই খবরকে কটাক্ষ করে নীরজ আবার লিখেছিলেন, ‘সঙ্গী খোলায়াড়দের সমর্থন করায় কোনও অন্যায় নেই৷ সেকারণে সেদিন স্টেডিয়ামে বসে ভিনেশকে উৎসাহ দিতে গিয়েছিলাম৷ স্টেডিয়ামে বসে অন্য খোলোয়াড়কে দেশের জন্য পদক জিততে দেখাটা সৌভাগ্যের৷’

সেই টুইট চালাচালির পর এশিয়াডের নবম দিনে নীরজকে নিয়ে ভিনেশের পোস্ট৷ জল কতদূর গড়াল সোশ্যাল মিডিয়ায় মাপতে শুরু করে দিয়েছে নেটিজেন! তবে হরিয়ানার এই অ্যাথলিট যে সোনা জিতে দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছে সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই৷ গত সপ্তাহে ৫০ কেজি ফ্রি-স্টাইল কুস্তিতে সোনা জেতেন ফোগত৷

Advertisement
---