এভারেস্টের কোলে প্রথমবার মুখোমুখি চিন-নেপালের সেনা

কাঠমান্ডু: রক্তচাপ বাড়ছে নয়াদিল্লির৷ প্রতিবেশী নেপাল ও চিনের যৌথ সামরিক মহড়ায় চিন্তিত ভারত৷ এই প্রথমবার নেপালি সেনা ও চিনা গণফৌজের মহড়া অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে৷ রবিবার থেকে শুরু হওয়া মড়া চলবে আগামী ১০দিন৷ মহড়ার নাম সগরমাথা ফ্রেন্ডশিপ-২০১৭( Sagarmatha Friendship-2017)৷ লক্ষ্য সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াই৷

সগরমাথা মাউন্ট এভারেস্টের নেপালি নাম৷ এই নামটি বেছে নিয়েছে বেজিং৷ কূটনীতিকরা মনে করছেন, ভারতকে বেগ দিতেই এই পন্থা চিনের৷

এতদিন পর্যন্ত নেপাল ভারত ও মার্কিন সেনার সঙ্গেই যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশ নিয়েছে৷ আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে এদের বিপক্ষেই অবস্থান করে চিন৷

- Advertisement -

ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়েই বিদেশ সফরে প্রথম নেপালকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী৷ তাঁর সফরের পর কখনও সংবিধান সংকট ইস্যু ও বিভিন্ন রাজনৈতিক কারণে নেপালের রাজনীতি ছিল উত্তপ্ত৷ সংবিধান গৃহীত হওয়ার পর নেপালের ক্ষমতায় এসেছিল সিপিএন (ইউ এম এল)৷ প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন কে পি শর্মা ওলি৷ তাঁর সরকারের চিন কূটনীতিতে চিন্তিত হয়েছিল নয়াদিল্লি৷ পরিস্থিতি এরপর বদলে যায়৷ নেপালের ক্ষমতায় ফের আসেন মাওবাদী নেতা প্রচণ্ড(পুষ্প কুমার দাহাল)৷ দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হয়েই প্রচণ্ড প্রথম বিদেশ সফরে দিল্লি এসেছিলেন প্রচণ্ড৷ তারপরেই চিনের তরফে নেপালের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কে বিশেষ জোর দেওয়া হতে থাকে৷

কূটনীতির সেই রেশ ধরে প্রথমবার চিনের সঙ্গে সামরিক মহড়া চালাবে নেপাল৷

Advertisement ---
-----