নেরোকা-চেন্নাই থ্রিলার ড্রয়ে ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ল ইস্টবেঙ্গলের

ইম্ফল: লিগের শেষ ল্যাপে এসে কঠিন প্রতিপক্ষদের মুখোমুখি মগডালে থাকা চেন্নাই সিটি এফসি। তাই যেনতেন প্রকারে আকবর নওয়াজের দলের পয়েন্ট নষ্ট স্বস্তি বয়ে আনবে শিবিরে। সেই আশাতেই সোমের বিকেলে লাল-হলুদ ব্রিগেডের চোখ ছিল ইম্ফলের খুমান লাম্ফাক স্টেডিয়ামে।

কারণ অ্যাওয়ে ম্যাচে শক্তিশালী নেরোকাকে হারাতে পারলে অনেকটাই ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যেতেন পেদ্রো মাঞ্জিরা। কিন্তু সদ্য আলেজান্দ্রো ব্রিগেডের কাছে হেরে কলকাতা ছাড়তে হলেও মোক্ষম সময় চেন্নাইকে রুখে ইস্টবেঙ্গলকে ফের লাইফলাইন দিয়ে গেল নেরোকা। ঘরের মাঠে এদিন তিন গোলে পিছিয়ে পড়েও লিগের অন্যতম উত্তেজক ম্যাচ উপহার দিলেন কাটসুমিরা। চেন্নাইকে ৩-৩ গোলে রুখে দিয়ে ইস্টবেঙ্গলকে লিগের লড়াইয়ে অনেকটাই সুবিধা পাইয়ে দিল পাহাড়ি দলটি।

কিন্তু অ্যাওয়ে ম্যাচে এদিন যে গতিতে ফুটবল শুরু করেছিল চেন্নাই, তাতে করে প্রথমার্ধের শেষে কোনওভাবেই দক্ষিণের দলটির পয়েন্ট হারানোর আশা করতে পারেননি ইস্টবেঙ্গল সমর্থকেরা। শুরুটা ভালো করলেও ম্যাচে আধিপত্য বিস্তার করতে পারেনি নেরোকা। ম্যাচের খানিকটা গতির বিরুদ্ধেই নেস্তোরের ডিফেন্স চেরা থ্রু থেকে ৩৫ মিনিটে চেন্নাইকে এগিয়ে দেন মাঞ্জি। ৪২ মিনিটে চেন্নাইয়ের দ্বিতীয় গোল নেরোকা ডিফেন্সের উপহার। ডিফেন্ডার ভার্নে ক্যালনের ভুলের সুযোগ নিয়ে স্কোরলাইন ২-০ করেন সে মাঞ্জি।

- Advertisement -

প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে স্প্যানিশ পেদ্রো মাঞ্জি হ্যাটট্রিক সম্পন করে চেন্নাইকে ৩-০ এগিয়ে দিতেই চেন্নাইয়ের পয়েন্ট নষ্টের আশা ছেড়ে দেয় ইস্টবেঙ্গল সমর্থকেরা। কিন্তু প্রথমার্ধ যদি চেন্নাইয়ের হয় তবে দ্বিতীয়ার্ধে এদিন লিগের সেরা খেলাটা উপহার দিল ম্যানুয়েল রেটামেরোর ছেলেরা। ৫২ মিনিটে চেঞ্চোর আসিস্ট থেকে ব্যবধান কমিয়ে আনেন ফেলিক্স চিডি। এরপর ৬৮ মিনিটে কাটসুমির সাজানো বলে দলের হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন গত ইস্টবেঙ্গল ম্যাচের একমাত্র গোলস্কোরার চেঞ্চো।

এরপর ৮৭ মিনিটে থ্রিলার ম্যাচে সমতা ফিরিয়ে আনেন অস্ট্রেলিয়ান আরিন উইলিয়ামস। আব্দুল সালামের লং থ্রু বল এযাত্রায় উইলিয়ামসের জন্য সাজিয়ে দেন চিডি। চিডির হেডে নামানো বল থেকে বুলেট শটে স্কোরলাইন ৩-৩ করেন অস্ট্রেলিয়ান সেন্টার ব্যাক। আর সেইসঙ্গেই থ্রিলার ড্রয়ে ঘাম দিয়ে জ্বর ছাড়ে আলেজান্দ্রো ব্রিগেডের। এই ড্রয়ের ফলে ১৬ ম্যাচে ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শীর্ষে থাকল চেন্নাই। তবে লিগ টেবিলে ইস্টবেঙ্গল যে অবস্থায় দাঁড়িয়ে তাতে করে চেন্নাইকে ছোঁয়া সম্ভব জবিদের পক্ষে।

বৃহস্পতিবার ঘরের মাঠে শিলং লাজংকে হারাতে পারলে সে লক্ষ্যে অনেকটাই এগিয়ে যাবে তারা। এদিকে ১০ তারিখ কাশ্মীরের বিরুদ্ধে লাল-হলুদের স্থগিত হওয়া ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি। দ্বিতীয়স্থানে থাকা রিয়াল কাশ্মীরের পয়েন্ট ১৬ ম্যাচে ৩২।