দিদির ‘রিশকা’ পেয়ে গান বাঁধলেন বেলা বোসের নতুন প্রেমিক

সৌমেন শীল, কলকাতা: বেলা বোস বা তার প্রেমিককে খেয়াল আছে? সেই ১৯৯৮ সালে গেয়েছিলেন অঞ্জন দত্ত। সেই প্রেমিক আবার ফিরে এল বছর ২০ পরে। সৌজন্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বামী বিবেকানন্দ স্বনির্ভর প্রকল্প।

গ্রামাঞ্চলের বেকার যুবদের আর্থিকভাবে স্বনির্ভর করার জন্য ই-রিকশা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগেই রাজ্যে ১০ হাজার ই-রিকশা বিলি করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে রিকশা পাওয়ার খুশিতে প্রেমিকা বেলা বোসকে জোর গলায় বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে ফেললেন এক প্রেমিক। গেয়ে ফেললেন, ‘রিশকা’ টা আমি পেয়ে গেছি বেলা শুনছো। সেই গানের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ভাইরাল।

- Advertisement -

বিংশ শতকের শেষের দিকে ১১০০ টাকার চাকরি পেয়ে বেলা বোসকে ফোন করেছিল তার প্রেমিক। কয়েক মাস পরে পরে বেতন বৃদ্ধির আশা বুকে নিয়েই আনন্দে মুখর ছিল সে। ২০ বছর পরে সেই বিষয়টিকেই নতুন করে তুলে ধরেছেন বেলা বোসের এই প্রেমিক। তিনি গেয়েছেন, ‘রিশকাটা আমি পেয়ে গেছি বেলা শুনছো/ এখন আর কেউ আটকাতে পারবে না।’ এই ভরসাতেই বেলা বোসকে অনুরোধ করেছেন, “সম্বন্ধটা এই বার তুমি ভেস্তে দিতেই পারো/ মাকে বলে দাও বিয়ে তুমি করছ না।” একইসঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন প্রেম বিয়েতে পরিণতি পেতে পারে অল্প কিছু দিন পরেই।

তবে রাজ্য সরকারের এই প্রকল্পে বেতন বৃদ্ধির কোনও ব্যাপার নেই। ব্যাংক ঋণের মাধ্যমে সাধারণের কাছে টাকা পৌঁছায় কিস্তিতে। সেই বিষয়টির সঙ্গে তুলনা করে একবিংশ শতকের এই প্রেমিক গাইলেন, “প্রথমেই ওরা এক চাকা দেবে, তিন মাস পরে দু’টো।”

দুই দশক পরেও অবশ্য একইরকম আছে সেই বেলা বোস। ফোন নম্বরটিও বদলে যায়নি। এখনও সে ফোনে কথা বলছে না, চুপ করে রয়েছে। পাবলিক টেলিফোন বুথ থেকে ফোন করা সেই প্রেমিকের মিটার বেড়ে যাচ্ছিল। এখন অবশ্য সেই সমস্যা নেই। অত্যাধুনিক প্রেমিকও আর পাবলিক টেলিফোন বুথ থেকে ফোন করেন না। স্মার্ট ফোনে ভিডিও কল করেন। প্রেমিকা কথা না বলেয় তিনি বলছেন, “ভিডিও কল করে/ আমার ডেটা যাচ্ছে পুড়ে/ জরুরি, খুব জরুরি দরকার।”

আধুনিক এই প্রেমিক হচ্ছেন সুদীপ্ত ঘোষ। ২৮ বছর বয়সী সুদীপ্ত পেশায় বেসরকারি সংস্থার কর্মী। মুখ্যমন্ত্রীর ই-রিকশা দেওয়ার প্রকল্পটিকে নিয়ে মজা করতেই তিনি ওই ভিডিও করে তা ফেসবুকে আপলোড করেছিলেন বলে জানিয়েছেন ইছাপুরের মল্লিক ভিলার বাসিন্দা সুদীপ্ত।

Advertisement
---