পড়ুয়াদের জন্য স্পেশাল কাউন্সিলিং সেন্টার চালু হচ্ছে জলপাইগুড়িতে

স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: জেলার স্টুডেন্ট হেলথ হোমের ৬৬ তম প্রতিষ্ঠা দিবস পালন হল রবিবার। এদিন স্টুডেন্ট হেলথ হোমের পতাকা তুলে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। এদিনের অনুষ্ঠানে মধ্য থেকে স্টুডেন্ট হেলথ ক্লিনিকের শুভ সূচনা করা হয়। পাশাপাশি পুজোর পরে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্পেশাল কাউন্সিলিং সেন্টার চালু করতে চলছে স্টুডেন্ট হেলথ হোম।

আরও পড়ুন: দীর্ঘ পরীক্ষার পর প্যাকেটের মধ্যে মিলল না কোনও ভ্রূণ

বেশ কয়েক বছর ধরে স্টুডেন্ট হেলথ ইউনিট অচল অবস্থায় পরে ছিল। ফের নতুন করে এই বছর প্রতিষ্ঠা দিবসে এই স্টুডেন্ট হেলথ ইউনিটের চালু হওয়াতে বেশ সুবিধে পাবে শহর ও শহরতলীর ছাত্র-ছাত্রীরা। দু’টাকার টিকিট কেটে সম্পূর্ণ বিনা পয়সায় ছাত্র-ছাত্রীরা ডাক্তার দেখাতে পারবেন৷ শুধু তাই নয়, বিনা পয়সার ওষুধের ব্যবস্থা থাকছে বলেও জানা গিয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য তৈরি করা হচ্ছে উন্নতমানের ল্যাবরেটরির। সেই ল্যাব থেকে স্বল্প মূল্যে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করাতে পারবে ছাত্র-ছাত্রীরা।

- Advertisement -

এখন থেকে নতুন পড়ুয়াদের জন প্রতি বছরে দশ টাকা করে নেওয়া হবে। যার মাধ্যমে তারা এই স্টুডেন্ট হেলথ হোমের সদস্য হতে পারবে। এই দিনের অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে একটি স্বেচ্ছায় রক্ত দান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। রক্তদান কর্মসূচিতে সাহায্য করেন জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে ব্লাড ব্যাংক। ব্লাড ব্যাংকের চিকিৎসক ছিলেন সঞ্চিতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন: কীভাবে বুঝবেন হোয়াটসঅ্যাপে ব্লক হয়েছেন?

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্টুডেন্ট হেলথ হোমের সভাপতি দিলীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সম্পাদক পান্থ দাশগুপ্ত, বিশেষ অতিথি হিসেবে আইএমএ সম্পাদক সুশান্ত রায়, প্রাক্তন সাংসদ মিনতি সেন সহ অন্যান্যরা৷ স্টুডেন্ট হেলথ হোমকে বিশেষ ভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন অলোক কুমার বসুও।

Advertisement
---