বাংলায় পাটের কাজ শিখে স্বনির্ভরতার সুযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: এবার পাট শিল্পকে কর্ম সংস্থানের অন্যতম উপায় করে তুলতে তৎপর হল রাজ্য শ্রম দফতর৷ সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই বারাকপুরে পাট শিল্পের কর্ম সংস্থানের বৃদ্ধিই এখন মূল লক্ষ্য তাদের কাছে৷ আর বেকার যুবক-যুবতীদের এই প্রকল্পে উৎসাহী করে তুলতে বারাকপুরে একটি প্রশিক্ষণ শিবিরের আয়োজন করা হল৷

প্রসঙ্গত, রাজ্য সরকারের উদ্যোগে বারাকপুরে শুরু হল পাট শিল্পে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য এক বিশেষ প্রশিক্ষণ শিবির। বারাকপুর শিল্পাঞ্চলে মূলত বেকার যুবকদের কর্মমুখী করে তুলতেই এই প্রশিক্ষণ শিবির৷ এই অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেছে রাজ্য শ্রম দফতর।

আরও পড়ুন: মহাদেবের মাসে চড়া দাম আকন্দর

- Advertisement -

কর্মসংস্থান অধিকার, রাজ্য শ্রম দফতর এবং এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ (কর্ম বিনিয়োগ কেন্দ্র) দফতরের উদ্যোগে এই কর্মশালাটি বুধবার থেকে শুরু হয়৷ এই প্রশিক্ষণ শিবিরটি আয়োজন করা হয়েছে বারাকপুরের এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ দফতরেই৷ তবে এই শিবিরে যোগদান করতে গেলে যুবক-যুবতীদের প্রথমে নিজেদের নাম নথিভুক্ত করতে হবে৷ তাহলেই এই দফতরে নথিভুক্ত পাট পাট শিল্পে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত যুবক-যুবতীদের জন্য আগামী দিনে কর্মসংস্থান কেন্দ্রে পাট শিল্পে চাকরির সুযোগ খুলে যাবে।

পাশাপাশি জানা গিয়েছে, বারাকপুর এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ দফতরে বুধবার থেকে শুরু হওয়া এই প্রশিক্ষণ শিবির টানা এক মাস চলবে। এরপরে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের বিভিন্ন জুট মিলে হাতেনাতে কাজের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সেখান থেকেই পাট শিল্পে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের বিভিন্ন জুট মিলগুলিতে কাজের সুযোগ মিলবে।

আরও পড়ুন: কোন দিকে ঘুরছে আপনার ভাগ্যের চাকা?

প্রথম দফায় দুটি ক্ষেত্রে ৮০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে৷ এরপরে সংখ্যাটি ক্রমশ আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন প্রশিক্ষণ শিবিরের আয়োজকরা। যারা প্রশিক্ষণ নেবেন তাদের এক মাসে মোট ২২ দিনের প্রশিক্ষণে পাটের বিষয়ে এবং জুট মিলে বিভিন্ন যন্ত্রাংশের বিষয়ে বুঝিয়ে দেওয়া হবে। এই নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই তাদের বিষয়টি রপ্ত করে নিতে হবে৷

উল্লেখ্য, বারাকপুর এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জের এই প্রশিক্ষণ শিবির উদ্বোধন করেন জগদ্দলের বিধায়ক পরশ দত্ত, সহ ডিরেক্টর অফ এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ অমরনাথ মল্লিক, জয়েন্ট ডিরেক্টর অফ এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ অমলকৃষ্ণ ঘোষ সহ এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ বিভাগের অন্যান্য আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন: ইস্টবেঙ্গল দিবসে লাল-হলুদের আইএসএল শপথ

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল যুবক-যুবতীরাই এই শিবির আয়োজনে বেশ খুশি৷ সেই সঙ্গে রাজ্য সরকারের নতুন কর্মসংস্থান-মুখী উদ্যোগকেও সাধুবাদ জানিয়েছেন তারা৷ শিবিরে আগত যুবক-যুবতীরা বলেন, ‘‘রাজ্য সরকার এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাদের কর্মক্ষেত্রে একটি নতুন দিশা দেখালেন৷ যার ফলে বারাকপুর শিল্পাঞ্চলে বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি হবে৷’’

Advertisement ---
---
-----