‘কারণ’ বারণে নয়া বিপদে বিহার

পাটনা: মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের কড়া সিদ্ধান্তে মদ্যপান বাতিল হয়েছে বিহারে। যার জেরে নয়া সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে বিহারবাসী। সরকারি নির্দেশিকায় মিলছে না মদ। বন্ধ হয়েছে মদের উৎপাদন। রাজধানী পাটনা আর গয়াতে সরকারি অনুমোদিত কিছু দোকানেই মিলছে ‘কারণ সুধা।’ রাজ্য জুড়ে মদের হাহাকারে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন প্রায় সাড়ে সাতশ বিহারবাসী। নেশার বিকল্প হিসেবে যে যা পাচ্ছে তা খেতে শুরু করে দিচ্ছে। কেউ সাবান খেয়ে নিচ্ছে কেউ আবার কাঁচা লঙ্কা চিবিয়ে খেয়ে ফেলছে মদের বিকল্প হিসেবে। পেন কিলারও বাদ যায়নি মদের বিকল্প হিসেবে। সরকারি তথ্য অনুযায়ী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৭৪৯জনকে সরকারি ডি-অ্যাডিকশন সেন্টারে ভরতি করা হয়েছে।

পুরুষরা মদ খেয়ে বাড়িতে এসে ঝামেলা করে। মহিলাদের গায়ে হাত তুলতেও কসুর করেনা। মূলত মহিলাদের করা এই অভিযোগ থেকে মদ থেকে শত হস্ত দূরে থাকা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার রাজ্যে ‘কারণ’ বারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। প্রথমে বিধায়ক তারপরে রাজ্যের পুলিশকর্মীদের শপথ নেওয়া করিয়েছিলেন মদ্যপান বিরত থাকার। মদের হাহাকারের ফলে যে নয়া সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে তা সামাল দিতে এখন নাভিশ্বাস উঠছে ওই রাজ্যের প্রশাসন সহ মহিলাদের। রাজ্য সরকারের এহেন ‘অনৈতিক’ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে অনেকে আদালতে মামলাও করেছেন। যদিও সেসব নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন না বিহারের প্রশাসনিক প্রধান নীতিশ কুমার। ‘কারণ’ বারণে সরকারের পাশে থাকার জন্য তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন রাজ্যের সব বিরোধী দলগুলিকে।