শ্রীনগরে জেল থেকে উদ্ধার পাকিস্তানের পতাকা

নয়াদিল্লি: শ্রীনগর সেন্ট্রাল জেলে তল্লাশি চালাল এনআইএ৷ জেলের ভিতর থেকে তারা দু’ডজনেরও বেশি মোবাইল, জিহাদ সাহিত্য ও একটি পাকিস্তানের পতাকা উদ্ধার করেছে৷ সেই সঙ্গে পাওয়া গিয়েছে একটি ডেটা হার্ডওয়্যার৷

জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ, সিআরপিএফ ও এনএসজি তল্লাশি চালিয়েছিল এনআইএ-র সঙ্গে৷ যে দলটি তল্লাশি চালায়, সেখানে ২০ জন সদস্য ছিলেন৷ দলে ছিলেন ম্যাজিস্ট্রেট, সাক্ষী ও চিকিৎসকরাও৷ জেলের ভিতর থেকে বিতর্কিত ও উত্তেজনামূলক অনেক বস্তুই উদ্ধার করা হয়েছে৷

জেল থেকে ২৫টি মোবাইল ফোন, কয়েকটি সিম কার্ড, ৫টি এসডি কার্ড, ৫টি পেন ড্রাইভ ও একটি আইপড উদ্ধার করা হয়েছে৷ সেই সঙ্গে পাওয়া গিয়েছে অনেক ডকুমেন্ট ও আর্টিকেল৷ হিজাবুল মুজাহিদিনের একটি পোস্টার ও একটি পাকিস্তানের পতাকা পাওয়া গিয়েছে৷ উদ্ধার করা হয়েছে জিহাদি সাহিত্যও৷ সোমবার ভোরবেলা তল্লাশি শুরু করে এনআইএ৷ তল্লাশি চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত৷

জেলের ভিতর ছাড়াও তল্লাশি চালানো হয় সমস্ত ব্যারাক ও খোলা এলাকায়৷ মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে প্রতিটি জায়গা খুঁজে দেখা হয়৷ সমস্ত অপারশনে ড্রোনের সাহায্য নজরদারি চালানো হয়৷ এনআইএ-র তরফ থেকে জানানো হয়েছে দানিশ গুলাম লোন ও সোহেল আহমেদ ভাটের গ্রেফতারির সঙ্গে এই তল্লাশির সম্পর্ক রয়েছে৷ কিছুদিন আগে কুপওয়াড়া পুলিশ এই দুজনকে গ্রেফতার করে৷

তদন্তে জানা যায় সন্ত্রাসবাদী দল আল-বাদরে নতুন মুখ নিয়োগ করা হয়েছে৷ তাদের ট্রেনিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে৷ শ্রীনগর জেলে বসেই এই ষড়যন্ত্র চালানো হয়েছিল৷ তাই এনআইএ জেল তল্লাশির সিদ্ধান্ত নেয়৷ এছাড়া গত ৬ ফেব্রুয়ারি লস্কর-ই-তইবার জঙ্গি মহম্মদ নাভিদ জাট শ্রীনগর হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়৷ শ্রীনগর জেলে বসেই সমস্ত পরিকল্পনা করা হয়েছিল বলে মনে করছে এনআইএ৷

Advertisement
----
-----