বিজেপির দাবি উড়িয়ে বিদ্রোহী নীতীশ একলা চলোর পথে?

পাটনাঃ  লোকসভা নির্বাচনের আগেই কি ফের বিজেপি-জেডিইউ জোট ভাঙছে ? এমনই প্রশ্ন ফের উঠতে শুরু করল৷ কারণ লোকসভায় বিহারের মাটিতে আসন সমঝোতা নিয়ে দুই দলের দূরত্ব বাড়ছেই৷ সূত্রের খবর, পরিস্থিতি যে দিকে যাচ্ছে তাতে দু পক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে ফের চলে যেতে পারে৷ তার ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে এখন থেকেই৷

যদিও গত সপ্তাহে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দাবি করেছিলেন, বিহারে এনডিএ জোটের আসন সমঝোতা পাকা হয়েছে৷ সেখানে নীতীশ কুমারকে পাশে পাওয়া যাবে৷ এখন রাজ্যে চলছে বিজেপির সঙ্গে জোট সরকার৷ এদিকে অমিত শাহের দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন জনতা দল ইউনাইটেড নেতা কেসি ত্যাগী৷ তাঁর দাবি, আসন সমঝোতা নিয়ে চূড়ান্ত কিছু স্থির হয়নি৷ বিজেপির প্রস্তাব মতো আসন বণ্টনে আপত্তি রয়েছে দলেরই ভিতরে৷

লোকসভায় বিহারের ৪০টি আসনের মধ্যে বিজেপি চায় ২০টি আসনে লড়তে৷ আর তাদের জোটসঙ্গী জেডিইউর জন্য ছাড়া হয়েছে ১২টি আসন৷ অপর জোটসঙ্গী রামবিলাস পাসোয়ানের দল এলজেপির জন্য ৬টি এবং উপেন্দ্র কুশাোয়ার দল আরএলএসপি-র জন্য ছাড়া হবে দুটি আসন৷

- Advertisement -

এই সমীকরণ মানতে রাজি হননি জেডিইউ নেতা কেসি ত্যাগী৷ তিনি বলেছেন, এটা তো বোধগম্যই হচ্ছে না কে কবে এমন আসন সংখ্যা স্থির করল৷ এরপরেই প্রশ্ন উঠতে থাকে ফের নীতীশ কুমার ও বিজেপির মধ্যে দূরত্ব নিয়ে৷ যদিও মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কিছুই বলতে চাননি৷

এনডিএ-এর পুরনো অংশীদার ডেডিইউ৷ কিন্তু গত লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী করায় নীতীশ কুমার ক্ষুব্ধ হয়ে জোট ছেড়েছিলেন৷ তারপর প্রবল শক্তি নিয়ে বিজেপি সরকার গড়ার পর নীতীশ কুমারের সঙ্গে সরাসরি লড়াই হয়েছিল বিহারের মাটিতে৷ বিধানসভার ভোটে লালুপ্রসাদ যাদবের দল আরজেডির সঙ্গে জোট করে জয়ী হয়েছিলেন নীতীশ কুমার৷ পরে লালু-নীতীশের দ্বন্দ্বে সেই জোট ভেঙে গিয়েছে৷ আবারও নীতীশ ফিরেছেন এনডিএ শিবিরে৷

এবার তাঁর অগ্নিপরীক্ষা৷ আসন সমঝোতা নিয়ে বাড়ছে ফাটল৷ সেই সঙ্গে পাটনার রাজনৈতিক মহলের চর্চা- বিজেপির জোট ছেড়ে দিতে পারেন নীতীশ কুমার৷

Advertisement
---