তিন মাস ধরে চলছে বৃষ্টির ঘাটতি

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়: ঘাটতি মেটাতে ব্যর্থ বর্ষা। তিন মাস পেরিয়েছে কিন্তু ভারতের পূর্বে ও উত্তর – পূর্বের রাজ্যগুলিতে এখনও থেকে গেল বৃষ্টির ঘাটতি। এই তালিকায় স্বাভাবিকভাবেই রয়েছে পশ্চিমবঙ্গও। সেখানেও ক্রমাগত চলছে বৃষ্টির ঘাটতি।

ভারতের সমস্ত্র স্থানেই স্বাভাবিক বর্ষা হবে। এমনটাই জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। কিন্তু বর্ষার দেশে আগমনের পর থেকে আগস্টের শেষ দিন পর্যন্ত পর্যাপ্ত বৃষ্টি হয়নি বলে জানা যাচ্ছে। তথ্যসূত্র মৌসম ভবন। খরা হওয়ার মতো পরিস্থিতি তৈরি না হলেও বৃষ্টির ঘাটতি পূরণ হচ্ছে না।

আরও পড়ুন: চলন্ত বাসে চালক-খালাসির লালসার শিকার তরুণী

- Advertisement -

আবহবিদরা মনে করছেন সিস্টেম তৈরি হলেও তা এই মরসুমে শক্তি সঞ্চয় করতে পারছে না সেগুলি। ফলত মৌসুমি বায়ু বিদ্যমান থেকেও লাভের লাভ কিচ্ছু হচ্ছে না। বৃষ্টির ঘাটতি সেই থেকেই যাচ্ছে। গত তিন মাসে ভারতের এই অংশেই বৃষ্টির অনেক কম হয়েছে। অন্য প্রান্তের রাজ্য গুলিতে কোথাও ৬ শতাংশ বৃষ্টির ঘাটতি রয়েছে সেখানে পূর্ব ও উত্তর পূর্ব ভারতে ব্রিস্তিত ঘাটতি এই মাসে ২৭ শতাংশ।

এই মুহূর্তে আবহবিদরা জানাচ্ছেন, মৌসুমি অক্ষরেখা গিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দিঘা ও বাঁকুড়ার উপর দিয়ে। তারপর সেটি এগিয়ে গিয়েছে পূর্ব ও উত্তর পূর্ব দিকে। ফলে পশ্চিমবঙ্গের উত্তরের জেলাগুলিতে বৃষ্টি হওয়ার পাশাপাশি দক্ষিনবঙ্গেও বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। কিন্তু উত্তর পূর্ব দিকের রাজ্যগুলিতে বৃষ্টির সম্ভাবনা কম।

আরও পড়ুন: বিপুল পরিমাণ যৌন উদ্দীপক মাদক উদ্ধার

গত সপ্তাহের শেষের দিকে অর্থাৎ শুক্রবার বাংলাদেশ , বিহারে দুটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়। কিন্তু সেটি পশ্চিমবঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি ছাড়া কিছু দিতে পারেনি। অসমের দিকেও তেমন প্রভাব ফেলতে পারেনি। ফলত বৃষ্টির ঘাটতি মিটতে মিটতেও মেটেনি।

আবহবিদরা আশা করেছিলেন এবার হয়তো দিন তিনেকের ভারী বৃষ্টি হবে। বৃষ্টির যে তিন মাস ধরে ঘাটতি চলেছে সেই ঘাটতি অগস্টের শেষ সপ্তাহে এসেও মিলল না। জুনের ১৫ তারিখ বঙ্গে বর্ষা এসেছিল, উত্তর-পূর্ব ভারতে তারও কিছু পড়ে। যা স্বাভাবিক দিনেই এসে উপস্থিত হয়েছিল বলে জানিয়েছিল মৌসম ভবন। কিন্তু বর্ষা এসেও বৃষ্টি না হলে যেমন হয়। ঠিক সেই পরিস্থিতি এখন চলছে পূর্ব ভারত-উত্তরপূর্ব ভারতে।

আরও পড়ুন: শিশুদের খুন করে আত্মঘাতী মা

সেপ্টেম্বরের মোটামুটি বর্ষার মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকার শেষ মাস। এই মাসেও যদি কম বৃষ্টি হয় তাহলে খাতায় কলমে স্বাভাবিকের চেয়ে কম বৃষ্টি হয়েও বিদায় নিতে পারে বর্ষা। তারপরে ভরসা হতে পারে এক এবং একমাত্র বঙ্গোপসাগরের উপর কোনও ঘূর্ণাবর্ত বা কোনও গভীর নিম্নচাপ যা গতবার বৃষ্টিতে ভরিয়ে দিয়েছিল পূর্ব ও উত্তর -পূর্ব ভারতকে।

আরও পড়ুন: মাদলের শব্দে মন ভালো করতে ঘুরে আসুন মোরাম

Advertisement
----
-----