রত্মা চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে টাকা নিইনি: শ্রেয়া পান্ডে

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্যের ক্রেতাসুরক্ষা মন্ত্রী সাধন পান্ডের মেয়ে শ্রেয়া পান্ডেকে দফায় দফায় ৯ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে ইডি৷ বৃহস্পতিবার সল্টলেক সিজিও কমপ্লেক্সের ইডি দফতর থেকে শ্রেয়া পান্ডে বেরিয়ে জানান, রত্মা চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে কোনও টাকা নেননি তিনি৷

এদিন বেলা ১১টা নাগাদ মন্ত্রী সাধন কন্যা ও অভিনেত্রী শ্রেয়া পান্ডে ইডি দফতর আসেন৷ তারপর তাকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) র তদন্তকারী আধিকারিকরা জিজ্ঞাসাবাদ করেন৷ দফায় দফায় তাকে নয় ঘন্টা জেরা করা হয়৷ জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার বয়ানও রেকর্ড করা হয়েছে বলে ইডি সূত্রে খবর৷

ফাইল ছবি

ইডি দফতর থেকে শ্রেয়া পান্ডে বেরিয়ে জানান, প্রাক্তন মেয়রের বান্ধবী আমার বিষয় কিছু মিথ্যে অভিযোগ করে গিয়েছিলেন৷ ওই অভিযোগ মিথ্যে৷ আমার সঙ্গে ওনার (বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়) কোনও পরিচয় না থাকা স্বত্ত্বেও নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য ইডিকে মিথ্যে তথ্য দিয়েছেন৷ সেই বিষয় ইডির হাতে সম্পূর্ণ প্রমাণ্য তথ্য দিয়েছি, আসা করি এখন তদন্তকারী আধিকারিকদের কাছেও পরিষ্কার যে, মহিলা মিথ্যে কথা বলেছেন৷

- Advertisement -

প্রাক্তন মেয়রের বান্ধবী আমার ইমেজ খারাপ করছেন৷ যেহেতু প্রাক্তন মেয়রের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আমার খুব ভাল সম্পর্ক৷ কোনও কারণে বা চাপের মুখে আমি ওই পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট হতে দেব না৷ নারদ কান্ডের টাকা প্রসঙ্গে শ্রেয়া পান্ডে জানান, ‘রত্মা চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে আমি কোনও টাকা নিইনি বা কোন রকম আর্থিক লেনদেন হয়নি৷ উনি আমার মায়ের মত৷’

সূত্রের খবর, সম্প্রতি প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর প্রিয় বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় কে জিজ্ঞাসাবাদ করে ইডির তদন্তকারী আধিকারিকরা। সেখানেই নারদ কাণ্ডে নাম উঠে আসে শ্রেয়া পান্ডের৷ নারদ কাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পর ওই কান্ডে তৎকালীন কলকাতা পুরসভার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠে। সেই টাকা কোথায় কোথায় গিয়েছে তার হদিস পেতে চায় ইডি। তবে এর আগে রোজভ্যালি কাণ্ডেও নাম জড়িয়েছে মন্ত্রী কন্যার৷