#NRC:মায়ের নাগরিকত্ব প্রমাণে ব্যর্থ ছেলে আত্মঘাতী

গুয়াহাটি: আদালতে চলছিল মায়ের নাগরিকত্ব প্রমাণের লড়াই৷ সর্বস্ব হারিয়ে আদালতের দীর্ঘাকালীন লড়াইয়ে আসেনি সাফল্য৷ মাকে বিতর্কিত নাগরিক তালিকায় দেখে তা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করলেন ছেলে৷ মর্মান্তিক এই ঘটনা গুয়াহাটির প্রত্যন্ত গ্রামের৷

দিন মজুরি শ্রমিক বিনয় চাঁদ তাঁর মায়ের নাগরিকত্ব প্রমাণে ব্যার্থ হয়েই এত বড় পদক্ষেপ নিয়ে ফেললেন৷ ফরেন ট্রাইবুনালে চলছিল নাগরিকত্ব প্রমাণের লড়াই৷ মামলা চালাতে বিনয় চাঁদ নিঃস্ব হয়ে যান৷ তারপরেও মামলায় জিততে না পারায় বিনয় চাঁদের মানসিক অবস্থা তলানিতে ঠেকে যায়৷ হাই কোর্টে মামলা লড়বে বলেও স্থির করেন, কিন্তু আর্থিক অভাবেই পিছিয়ে আসতে হয় বিনয় চাঁদকে৷ এরপর থেকেই বাড়ির লোকের সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করে দেন তিনি৷

পুলিশ সূত্রে খবর, ১৯৬০ সালের জমির নথি দেখিয়ে নাগরিকত্ব প্রমাণ করেছিলেন বিনয় চাঁদের মা৷ সেই নথি দেখিয়েই এতদিন ভোট দিয়ে আসছিলেন৷ কিন্তু, NRC জটে পরিস্থিতি অন্য মোড় নেয়৷ ফরেন ট্রাইবুনালের বিচারে বিতর্কিত, বা আশঙ্কাপূর্ণ নাগরিক তালিকায় চলে যান বিনয় চাঁদের মা৷ হত দরিদ্র পরিবারগুলির পক্ষে নাগরিতক্ব প্রমাণের আইনি লড়াই চালানো অসম্ভব৷ খরচ টানতে গিয়ে নিজের ঘর বাড়ির বিক্রি করতে হচ্ছে গরিব পরিবারগুলিকে৷স্থানীয়রা জানাচ্ছেন, বিনয় চাঁদ চেয়েছিলেন আইনি লড়াই জিতে বৃদ্ধা মা কে শেষ বয়সে নাগরিকত্বের সুখ দেবেন৷ সেই আশা পূর্ণ না হোতেও নিজেকে শেষ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন৷

- Advertisement -

পড়ুন:NRC-তে নাম না থাকায় আত্মঘাতী হলেন এক ব্যক্তি

ছেলেকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ বিনয়ের মা৷ দিন মজুরির সংসারে বিনয়ই ছিলেন একমাত্র রোজগেরে৷ ২০ দিন আগেই সন্তানের জন্ম দিয়েছেন বিনয়ের স্ত্রী৷ সদ্যজাতের আনন্দ মায়ের নাগরিক না হওয়ার দুঃখকে ঢাকতে পারেনি৷ তাই, সন্তান জন্মানোর আনন্দ কখনই উপভোগ করেননি বিনয় বলে জানাচ্ছেন বৃদ্ধা মা৷ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের ভিত্তিতে ১ লক্ষ ২৫ হাজার বিতর্কিত নাগরিক তালিকায় রয়েছেন, সেই তালিকাতেই বিনয় চাঁদের মা৷ আত্মহত্যা যে নাগরিকত্বের জট কাটাতে পারবে না , তা কি বোঝেনি গরিব সংসারের একমাত্র রোজগেরে ছেলে বিনয়? প্রশ্ন সন্তান হারা বৃদ্ধার নির্বাক মুখে৷

Advertisement
-----