পুরভোটে নোটা না থাকায় খর্ব অধিকার

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এ রাজ্যের আসন্ন পুরনির্বাচনে খর্ব হচ্ছে নাগরিক অধিকার৷সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও যেভাবে খর্ব হচ্ছে নাগরিক ওই অধিকার, তার বিরুদ্ধে সোমবার থেকে রাজ্যজুড়ে শুরু হচ্ছে প্রতিবাদ-আন্দোলন৷

নাগরিকদের গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব হচ্ছে আসন্ন কলকাতা সহ রাজ্যের ৯২টি পুরসভার নির্বাচনে৷ কারণ, এই নির্বাচনে ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন)-এ থাকছে না নোটা (নন অফ দ্য অ্যাবভ) বাটন৷অর্থাৎ, কোনও কেন্দ্রের কোনও প্রার্থীকেই যদি পছন্দ না হয় কোনও নাগরিকের, তা হলে তিনি তাঁর গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন না৷

এ ভাবে নাগরিক অধিকার খর্ব হওয়ায় সোমবার, ১৩ এপ্রিল থেকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন উপায়ে প্রতিবাদ-আন্দোলনে শামিল হবে মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর৷এই বিষয়ে আগামী ১৬ এপ্রিল এপিডিআর-এর তরফে রাজ্য নির্বাচন কমিশনে স্মারকলিপিও পেশ করা হবে৷এপিডিআর-এর রাজ্য সহ-সভাপতি রঞ্জিত শূর বলেন, ‘‘কলকাতা সহ রাজ্যের আসন্ন বিভিন্ন পুরসভার নির্বাচনে, কোনও ইভিএমে থাকছে না নোটা বাটন৷এ ভাবে নাগরিক অধিকার খর্ব করা যায় না৷ এটা অনৈতিক৷’’

- Advertisement -

একই সঙ্গে হবে এপিডিআর-এর রাজ্য সহ-সভাপতি বলেন, ‘‘নোটা বাটন চালুর জন্য সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ রয়েছে৷ কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনকে ওই নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল৷ কিন্তু, ওই নির্দেশ রাজ্য নির্বাচন কমিশনের উপর প্রযোজ্য নয়, এই ধরনের যুক্তি দিয়ে নোটা বাটনের প্রসঙ্গ এড়িয়ে যেতে চাইছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন৷’’  তাঁর কথায়, ‘‘গণতান্ত্রিক অধিকারের সুরক্ষায় সুপ্রিম কোর্টের নোটা বাটন ব্যবহারের নির্দেশ, রাজ্য নির্বাচন কমিশনের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হওয়া উচিত৷’’

এ রাজ্যের গত পঞ্চায়েত নির্বাচনেও কোনও ইভিএমে ছিল না নোটা বাটন৷ এ কথা জানিয়ে রঞ্জিত শূর বলেন, ‘‘তৎকালীন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার মীরা পাণ্ডে বলেছিলেন, স্বল্প সময়ের জন্য সেই সময় কোনও ইভিএমে নোটা বাটন রাখা সম্ভব ছিল না৷ তবে, পরবর্তী সময়ে নোটা বাটন রাখার পক্ষেই তাঁর সায় ছিল৷ ২৫ এপ্রিল যে সব পুরসভায় নির্বাচন হবে, সে সব ক্ষেত্রে যাতে ইভিএমে নোটা বাটন রাখা হয়, তার জন্য ১৬ এপ্রিল আমরা রাজ্য নির্বাচন কমিশনারের কাছে দাবি পেশ করবো৷’’

কোনও প্রার্থীকেই পছন্দ নয়৷ সেজন্য যাতে এমন কোনও বাটন রাখা যায় ইভিএমে, তার জন্য বহু বছর আগে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিল এপিডিআর৷ পরবর্তীতে পৃথক একটি সংগঠন মামলা করে সুপ্রিম কোর্টে৷ যে মামলার জেরে, নোটা বাটন চালুর জন্য নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট৷

========================================

Advertisement ---
---
-----