‘পাকিস্তান থেকে ইমরানের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের কোনও আমন্ত্রণ এখনও আসেনি’

নয়াদিল্লি: পাক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করবেন ইমরান খান৷ কিন্তু সেই শপথ গ্রহণ নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা৷ সেই অনুষ্ঠানে ভারতের পক্ষ থেকে কারা আমন্ত্রিত সেই নিয়েও হয়েছে জলঘোলা৷ ভারতের বিদেশমন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এখনও পর্যন্ত ভারত থেকে কে কে যাবেন তা নিয়ে কোনও তথ্য তাঁদের কাছে আসেনি৷ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার এই বিষয়ে জানান যে, তাঁর কাছে এই সংক্রান্ত কোনও অনুরোধ আসেনি৷

এর আগে মাসের শুরুতে, তাঁর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে কোনও বিদেশি নেতা বা রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের ভীড় হোক, চান না, এমনই জানিয়েছিলেন পাকিস্তানের শপথ নিতে চলা প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷ তিনি চান তাঁর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হোক জাঁক জমকহীন৷

পাকিস্তানের সংবাদপত্রগুলির দাবি ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ বা পিটিআইয়ের পক্ষ থেকে প্রকাশ করা হয়েছে একটি বিবৃতি৷ সেখানে পিটিআই বলেছে তাদের নেতা চান কোনও বিদেশি নেতাকে আমন্ত্রণ না জানাতে৷ ১১ অগস্ট শপথ নিতে চলেছেন ইমরান খান৷ দল চেয়েছিল দেশ বিদেশের তাবড় নেতাদের সেই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানাতে৷ তবে চান নি ইমরান৷

- Advertisement -

পড়ুন: ভারতে পরমাণু হামলার প্ররোচক শিরিন হতে পারেন পাক রক্ষামন্ত্রী

পিটিআই চেয়েছিল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও যেন উপস্থিত থাকেন সেই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে৷ তবে সব জল্পনার শেষে জানা যায় নরেন্দ্র মোদী থাকছেন না ৷ তবে থাকতে পারেন বলিউড অভিনেতা আমির খান, ক্রিকেটান কপিল দেব, সুনীল গাভাসকার, নভজ্যোত সিং সিধুর মতো ব্যক্তিত্বও৷ তবে এই বিষয় নিয়ে জল্পনা-কল্পনা রয়েছে৷

ইমরান নাকি বলেছেন, কোনও বিদেশি নেতা নন, তাঁর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে থাকবেন খুব কাছের কিছু মানুষ৷ কোনও লোক দেখানো আড়ম্বর করা হবে না অনুষ্ঠানে৷ তবে সমগ্র বিষয়টি নিয়েই ধোঁয়াশা রয়েছে৷

ধোঁয়াশায় রয়েছে তার এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান৷ কারণ, পাকিস্তানে প্রধানমন্ত্রীর পদে বসার আগেই ক্ষমা চাইতে হবে ইমরান খানকে এবং সেই মর্মে একটি চিঠিও লিখতে হবে৷ সূত্র অনুযায়ী, গত ২৫ জুলাই পাক নির্বাচনে নিজের ভোটপ্রদানের সময় নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ উঠেছিল তার বিরুদ্ধে আর তাই ক্ষমা চাওয়ার কথা বলা হয়েছে৷

Advertisement ---
---
-----