শীলার সভায় টাইটলার, শিখ ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে

নয়দিল্লি: শিখ সংঘর্ষে অভিযুক্ত জগদীশ টাইটলারকে দেখা গেল কংগ্রেসের এক সভায়৷ তারপরই কংগ্রেসের বিরুদ্ধে খড়গহস্ত হয়েছে শিরোমণি অকালি দল৷ তোপ দেগে জানিয়েছে, এতেই বোঝা যায় শিখ সম্প্রদায়ের প্রতি কোনও সহানুভূতি নেই কংগ্রেসের৷ শিরোমণি অকালি দলের নেত্রী তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিমরত কৌর বাদল গান্ধী পরিবারকে তুলোধনা করেছেন৷ তীব্র কটাক্ষের সঙ্গে জানিয়েছেন, শিখদের সঙ্গে গান্ধী পরিবারের পূর্বসূরিরা যে আচরণ করেছে সেই পরম্পরা বজায় রেখেছেন রাহুল গান্ধী৷ এতেই পরিস্কার শিখদের প্রতি তাদের কোনও শ্রদ্ধা, ভক্তি ও সহানুভূতি কোনটাই নেই৷

দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি হিসাবে আজই দায়িত্ব নেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিলা দীক্ষিত৷ সেই অনুষ্ঠানে একেবারে প্রথম সারিতে কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে বসতে দেখা গিয়েছে জগদীশ টাইটলারকে৷ সেই ছবি মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই শিখ সংঘর্ষে অভিযুক্তকে প্রশয় দেওয়ার অভিযোগে বিদ্ধ হতে হয়েছে কংগ্রেসকে৷ অকালি দলের আরও নেতা মনজিন্দর সিং সিরসা এই নিয়ে মুখ খোলেন৷

এককদম এগিয়ে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘‘শিখ সংঘর্ষ মামলার সাক্ষীদের ভীত করতে টাইটলারকে সামনে এনেছে কংগ্রেস৷ এর মাধ্যমে কংগ্রেস একটি বার্তা দিতে চাইছে৷ সেটি হলো হাইকমান্ডের পূর্ণ সমর্থন আছে টাইটলারের প্রতি৷ কেউ তাঁর বিরুদ্ধে যেন সাক্ষ্য দেওয়ার সাহস না দেখায়৷ তাঁর আরও অভিযোগ, সজ্জন কুমারের সাজার পর কংগ্রেস ভয় পেয়ে যায়৷ ভেবেছিল যাদের তারা এতদিন নিরাপত্তা ও আশ্রয় দিয়েছিল তাদের সবাইকে এখন জেলে যেতে হবে৷ কিন্তু এই ধরণের কাজ করে বিচারব্যবস্থা ও পুলিশকেও বার্তা দিতে চেয়েছে কংগ্রেস যে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যাবে না৷’’

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জগদীশ টাইটলার ৮৪ শিখ নিধন কাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত৷ নানাবতী কমিশনের রিপোর্টে তাঁর নাম পর্যন্ত রয়েছে৷ বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে টাইটলারকে আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ তোলে৷ টাইটলারকে নিয়ে অস্বস্তিতে পড়তে হয় কংগ্রেসকে৷ তবে শিখ বিরোধী সংঘর্ষে জড়িত থাকার সব অভিযোগ অস্বীকার করেন টাইটলার৷