কলেজে ভর্তিতে ছাত্র নেতাদের দাপট রুখতে কড়া বার্তা শিক্ষামন্ত্রীর

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ছাত্র ভর্তিতে ইউনিয়নের কোনও ভূমিকা থাকতে পারে না৷ যারা এই কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে৷ শুক্রবার গড়িয়ার দীনবন্ধু অ্যান্ড্রুজ কলেজে ছাত্রভর্তির দখলদারি নিয়ে সংঘর্ষ হয়ে তৃণমূলের দু’ই কাউন্সিলের অনুগামীদের মধ্যে৷ সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই শনিবার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই কড়া বার্তা দিয়েছেন৷

শুক্রবার মাইক্রোবায়োলজির কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া চলছিল দীনবন্ধু অ্যান্ড্রুজ কলেজে৷ কলেজের তৃণমূল কংগ্রেস ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক স্নিগ্ধা সাহার অভিযোগ, সেই সময় বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্তর ৮-১০ জন অনুগামী জোর করে কলেজে প্রবেশ করেন৷ তারপর, তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্যদের মারধর শুরু করে অভিযুক্তরা৷ ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর অরূপ চক্রবর্তী ও মেয়র পারিষদ মলয় মজুমদার৷ অভিযোগ, তাঁদের গায়েও হাত তোলে অভিযুক্তরা৷

গোটা ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠে দীনবন্ধু অ্যান্ড্রুজ কলেজ৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ৷ তাদের তৎপরতায় পালিয়ে যায় বেশ কিছু অভিযুক্ত৷ আটক করা হয় কয়েকজনকে৷ জানা গিয়েছে, ছাত্র ভর্তির দখলদারি নিয়ে তৃণমূলের কাউন্সিলর বাপ্পাদিত্য দাশগুপ্ত ও অরুপ চক্রবর্তীর অনুগামীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়৷ পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে উঠে যে ভেঙে দেওয়া হয় এই কলেজের পরিচালন সমিতি৷

- Advertisement -

শুক্রবারের সেই ঘটনার বিষয়ে শিক্ষমন্ত্রীকে আজ জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘‘যদি কোনও বেআইনি কাজ হয়ে থাকে, তাহলে প্রশাসনিক ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ শুধু অ্যান্ড্রুজ কলেজ নয়,সর্বত্রই আমি আরও কঠোর হব৷ ছাত্রভর্তি নিয়ে নিয়ে ইউনিয়নের কোনও ভূমিকা থাকতে পারে না৷ সে যে দলেরই হোক, যে মতেরই হোক, যে পথেরই হোক৷ কঠোর হাতে আমরা তার মোকাবিলা করব৷’’

এ ছাড়া, এই ধরনের ঘটনায় কলেজ কর্তৃপক্ষ যদি নরম অবস্থান গ্রহণ করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধের ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ তিনি বলেন, ‘‘আর কোনও কলেজের অধ্যক্ষ, অশিক্ষক কর্মচারি বা অধ্যাপক যদি কোনও দুর্বলতা দেখায়, সেটাও আমরা গ্রহণ করব না৷’’

Advertisement
---