প্রশাসনিকস্তরে আলোচনাতেও মিলল না সমাধান সূত্র, অব্যাহত মাশানজোড় জট

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: দুই রাজ্যের প্রশাসনিকস্তরে আলোচনাতেও মিলল না সমাধান সূত্র৷ ফলে অব্যাহত মশানজোড় সংকট ৷ বুধবার সমস্যা সমাধানে বীরভূমের অতিরিক্ত জেলা শাসক রঞ্জনকুমার ঝাঁ দুমাকায় যান৷ দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন দুমকার জেলা কালেক্টর রাকেশ কুমারের সঙ্গে৷ বৈঠক শেষে দুমকার জেলা কালেক্টর জানান, ‘সমস্যা সমাধানে আরও আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে৷’

মাশানজোড় বাঁধের রং ও প্রবেশ তোড়নে বিশ্ব বাংলা লোগো লাগানোকে কেন্দ্র করে বিজেপি শাসিত ঝাড়খণ্ডের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিরোধের সূত্রপাত৷ ঝাড়খণ্ড সরকারের অভিযোগ রাজনৈতিক স্বার্থে বাঁধের রঙ নীল সাদা করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার৷ ঝাড়কণ্ড সীমানার মধ্যে এরাজ্যের লোগো লাগানে নিয়েও অসন্তোষ প্রকাশ করে প্রতিবেশী রাজ্যটি৷ এমনকি প্রবেশ তোড়ন থেকে বিশ্ব বাংলা লোগো সরিয়ে লাগিয়ে দেওয়া হয় ঝাড়খণ্ডের লোগো৷ বিরোধের জেরে বন্ধ হয়ে যায় মাশানজোড় বাঁধে রঙের কাজ৷ পরিস্থিতি আরও জটীল হয় সেই রাজ্যের মন্ত্রী লুইস মারাণ্ডির মন্তব্যকে কেন্দ্র করেও৷

সমস্যা সমাধানে এদিন বীরভূম ও দুমকার প্রশাসনিকস্তরে বৈঠক হয়৷ আলোচনায় উঠে আসে বাঁধের নীল সাদা রঙ ও বিশ্ব বাংলা লোগো লাগানোর বিষয়টি৷ দুমকার জেলা কালেক্টর জানতে চান, ঝাড়খণ্ডে বিশ্ব বাংলা লোগো লাগানোর অনুমতি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের রয়েছে কিনা? বৈঠক শেষে বীরভূমের অতিরিক্ত জেলা শাসক রঞ্জনকুমার ঝাঁ কিছু বলতে চাননি৷ তিনি বৈঠকের রিপোর্ট জেলা শাসককে জমা দেবেন বলে জানা যায়৷ দুমকার জেলা কালেক্টর মুকেশ কুমার বলেন, ‘‘অনেকগুলি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে৷ তবে আরকও আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে৷’’ তবে মাশানজোড় বাঁধের কারণে দুই প্রতিবেশী রাজ্যের সম্পর্কের অবনতি হবে না বলেই আশা প্রকাশ করেন তিনি৷

- Advertisement -

মাসানজোড় বাঁধে কাজ বন্ধ হওয়ায় নষ্ট হওয়ার মুখে প্রচুর পরিমানে রঙ৷ কিন্তু আলোচনাতেও মিলছে না বাঁধের জট কাটানোর সমাধান সূত্র৷

Advertisement ---
---
-----