মনোনয়ন প্রত্যাহারের দিন ঘোষণা কমিশনের

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ১২ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময়৷ বুধবার বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই ঘোষণা করল রাজ্য নির্বাচন কমিশন৷

রাজ্য নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এ দিন জানানো হয়েছে, আগামী ১৬ এপ্রিল, সোমবার বেলা তিনটের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে৷ তবে, শনি ও রবিবার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে না৷ যার জেরে, এ বারও মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের জন্য তিনদিন সময় দিচ্ছে কমিশন৷

আরও পড়ুন: জোর করেই পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রার্থী হলেন পার্শ্বশিক্ষকরা

- Advertisement -

২০১৩-র পঞ্চায়েত নির্বাচনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের জন্য তিনদিন সময় দেওয়া হয়েছিল৷ এ বার পাঁচদিন থাকায়, বিরোধী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির তরফে অভিযোগ জানানো হচ্ছিল৷ এসইউসিআইয়ের তরফে অভিযোগ জানানো হয়, পাঁচদিন সময় থাকার কারণে শাসকদল ‘সন্ত্রাসে’র সুযোগ বেশি পেয়ে যাবে৷ যার জেরে অনেকেই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিতে বাধ্য হবেন৷ এই ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন যাতে হতে না হয়, তার জন্য পাঁচদিনের সময় কমিয়ে আনার দাবি জানিয়েছে এসইউসিআই৷

বিরোধীদের বক্তব্য, এমনিতেই তাদের প্রার্থীদের ‘ভয়’ দেখিয়ে ‘চাপ’ দিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করানোর চেষ্টা করছে শাসকদল৷ তার মধ্যে শনি ও রবি, এই দু’দিন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে না৷ এই দু’দিনও সাসকদলের ‘সন্ত্রাস’ অব্যাহত থাকবে বলে আশঙ্কায় রয়েছে বিরোধী বিভিন্ন রাজনৈতিক দল৷

আরও পড়ুন: নির্বাচন কমিশন ‘বেআইনি’ কাজ করছে, তোপ শিক্ষকদের

নির্বাচন কমিশন থেকে শেষ পাওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বার জেলা পরিষদে ৮২৫টি আসনে মোট মনোনয়ন জমা পড়েছে ৩০,৫৩৮টি৷ তার মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেসই মনোনয়ন জমা করেছে ১,০৬৬টি৷ পঞ্চায়েত সমিতিতেও যেখানে আসন সংখ্যা ৯,২১৭টি, সেখানে মনোয়ন জমা পড়েছে ২৭,০৯৭টি৷ এখানেও শাসকদলের মনোনয়ন জমার সংখ্যা, আসন সংখ্যার অনেক বেশি৷ গ্রাম পঞ্চায়েতেও ৪৮,৬৫০টি আসনে মনোনয়ন জমা পড়েছে ১,২৭,০৩০টি৷ এখানে তৃণমূলের একই অবস্থা৷ মঙ্গলবারই কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, দলের প্রতীক বন্টন হয়ে গেলেই এই সংখ্যাটা অনেক কমে যাবে৷

Advertisement
---