টিএমসিপির পরবর্তী সভাপতি বারাসতের তৃণাঙ্কুর !

নিবেদিতা দে, কলকাতা: জল্পনা ছিল নেত্রীর ভাইপো অভিষেক ঘনিষ্ঠ কোন ছাত্র নেতাই নির্বাচিত হবেন টিএমসিপির পরবর্তী সভাপতি পদের জন্য৷ সেই জল্পনাকে সত্যি করে টিএমসিপির সভাপতি হওয়ার দৌড়ে এক নম্বরে উঠে এসেছে বারাসত ইউনিভার্সিটির তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্যের নাম৷

তৃণমূল ছাত্র সংগঠনের রাজ্য কমিটির একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য তৃণাঙ্কুরের নাম এর আগে সম্ভাব্য সভাপতিদের তালিকায় শোনা যায়নি৷ হঠাৎই ছাত্র দিবসের প্রতিষ্ঠা মঞ্চে ভালো বক্তব্য রেখে তিনি এই সভাপতি হওয়ার দৌড়ে প্রথম স্থানে উঠে এসেছেন৷ এমনই মনে করছেন কিছু নেতৃত্ব৷

প্রশ্ন হল, হঠাৎ তৃণাঙ্কুরই কেন? সূত্রের খবর, এবার তৃণাঙ্কুরের নাম ওঠার সূত্রটা একটু অন্যরকম৷ নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিক আবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত দলে৷ সম্প্রতি বেশ কয়েকটি জেলার সভায় অভিষেকের সঙ্গে পার্থ ভৌমিককে দেখা গেছে৷ আর বিধায়কের স্নেহধন্য তৃণাঙ্কুর৷ সেই সূত্রেই মঙ্গলবার ছাত্র সমাবেশে মঞ্চে তিনিই নাকি দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সামনে তৃণাঙ্কুরকে বক্তৃতা দেওয়ার জন্যে এগিয়ে দেন৷ এবং সুযোগের মর্যাদাও রাখেন ছাত্র নেতা৷

- Advertisement -

মঙ্গলবার টিএমসিপির প্রতিষ্ঠা দিবসের মঞ্চে বক্তৃতার সুযোগ পান মাত্র তিনজন ছাত্র নেতা-নেত্রী রুমানা, লগ্নজিতা ও তৃণাঙ্কুর৷ সদ্য প্রাক্তন সভানেত্রী জয়া দত্তকেও মঞ্চে বক্তৃতা দিতে দেওয়া হয়নি৷ এমনকি, পতাকা উত্তোলনের সময়ও অন্য কাজ দিয়ে তাঁকে দূরে সরিয়ে রাখা হয়েছিল৷ কিন্তু তৃণাঙ্কুর বাকি দুই ছাত্র নেত্রীকে বহু যোজন পিছনে ফেলে ভালো বক্তৃতা দিয়ে এগিয়ে গিয়েছে ৷ শোনা গেছে, ভালো বক্তৃতা রেখে দলনেত্রীর প্রশংসাও কুড়িয়েছে সে৷ তবে দলের অনেকের কথায় আবার, ভালো বক্তব্য রাখতে পারলেই যে সভাপতি হওয়া যায় এমনটা মনে করারও কোন কারণ নেই৷

সভাপতি পদের লিস্টে নিজের নাম উঠেছে শুনে কি বলছে তৃণাঙ্কুর? তার সাফ কথা ‘‘আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নীতিতে বিশ্বাস করি৷ তাঁর তৈরি করা আদর্শে চলার চেষ্টা করছি৷ শুধু রাজনীতিটাই করতে চাই৷ তাতে কোনও পদ পেলে এটাই আমার রাজনৈতিক জীবনে শেষ উত্থান নয়৷ আর পদ না পেলেও যে রাজনীতি করা যাবে না এমনটাও নয়৷ তাই পদের মোহ আমার নেই৷ তার বদলে দলের একজন বিশ্বস্ত সৈনিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে চাই৷’’

রাজনীতির সূত্রে বিভিন্ন কলেজে ঘুরে তৃণাঙ্কুর উপলব্ধি করেছে, ‘‘ছাত্রদের এক সুন্দর জেনারেশন গড়ে উঠছে৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে ছাত্রদের একটা জোয়ার আসছে৷ আগামী দিনে ছাত্রদের এই জেনারেশনই রাজনীতির মানদণ্ড হয়ে দাড়াবে৷ তারাই গড়বে দেশ৷ রুখবে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা৷’’ তবে ছাত্র সমাবেশের মঞ্চে নিজের ভালো বক্তব্য রাখার প্রশ্নে তিনি জানিয়েছেন, ‘‘কেউ ভালো বক্তব্য রাখে, কেউ বা অন্য কিছুতে ভালো৷ তাই মঞ্চে ভালো বক্তৃতা রাখতে পারলেই যে আমি সভাপতি হওয়ার জন্য এক নম্বর প্রার্থী এমনটা আমি মনে করি না৷’’

আগামী ৮ সেপ্টেম্বর তৃণমূল ভবনে টিএমসিপির ছয় সদস্যদের নিয়ে কোর কমিটির মিটিং হবে৷ সেই মিটিং থেকেই সংগঠনের পরবর্তী সভাপতি নির্বাচন হওয়ার কথা৷ আর তৃণাঙ্কুরকেও ৮ সেপ্টেম্বরের মিটিং-এ ডাকা হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷

Advertisement
---