বেজিং: চিনে সারপ্রাইজ ভিজিট করলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন৷ ২০১১ সালে ক্ষমতা দখলের পর এটিই তাঁর প্রথম বিদেশ সফর৷ তবে তাঁর এই সফর হয়েছে সম্পূর্ণ অজ্ঞাতসারেই৷ মাত্র ৩ জন মানুষ এই সফরের কথা জানতেন বলে জানা গিয়েছে৷

কতদিন কিম চিনে থাকবেন, তা নিয়েও এখন ধোঁয়াশা রয়েছে৷ শোনা গিয়েছে, কিছু গুরুত্বপূর্ণ আলোচনার জন্যই চিনে এসেছেন তিনি৷ কিন্তু আলোচনাটি কী, তা এখনও জানানো হয়নি৷ এমনকী খবর যাতে কোনওভাবে না প্রকাশ পায়, তার জন্য সবরকম পদক্ষেপই নেওয়া হচ্ছে৷

জাপানের একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, একটি বিশেষ ট্রেন কিমকে উত্তর পূর্ব চিনের সীমান্তে নিয়ে আসে৷ সেখান থেকেই চিনে প্রবেশ করেন উত্তর কোরিয়ার এই সুপ্রিম লিডার৷ একটি টেলিভিশন চ্যানেলে ট্রেনের ছবিও দেখানো হয়েছে৷ দেখা গিয়েছে কিমের বাবা যে ট্রেনটি ব্যবহার করতেন, এটি হুবহু তেমনই দেখতে৷ ২০১১ সালে মৃত্যুর আগে কিম জং উনের বাবা কিম জং ইল এই ট্রেনে চেপেই চিন সফরে এসেছিলেন৷

এমাসেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা করার কথা কিমের৷ দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে, পারমাণবিক শক্তি নিয়ে মার্কিন মুলুকের সঙ্গে মুখোমুখি আলোচনায় বসতে চায় উত্তর কোরিয়া৷ আমেরিকার কূটনীতিবিদরাও সেই আলোচনাসভায় উপস্থিত থাকবেন বলে খবর৷

শোনা গিয়েছে, কিম দুই কোরিয়ার সীমান্ত নিয়ে আলোচনার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জেইর সঙ্গে দেখা করবেন৷ পরের মাসেই তাঁদের বৈঠক হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷

----
--