নয়াদিল্লি: আয়কর দফতরকে তীব্র ভৎসনা করল দেশের সর্বোচ্চ আদালত। একটি অসম্পাদিত আবেদনের ভিত্তিতে করা মামলায় কোর্টকে কোনো সদুত্তর দিতে না পারায় কোর্টের তীব্র অপমানের মুখে পড়ল আয়কর দফতর। সাফ জানিয়ে দিল, “সুপ্রিম কোর্ট পিকনিকের জায়গা নয়”।

আরও পড়ুন- জম্মু কাশ্মীরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শনে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী

বিচারপতি মদন লোকুরের বেঞ্চ আয়কর দফতরকে ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা করার পাশাপাশি আয়কর বিভাগ কিভাবে এই বিষয়টিকে এত দায়সারা ভাবে নিতে পারে? সে বিষয়েও আয়কর বিভাগের দিকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেয়।এই মামলায় বিচারপতি মদন লোকুরের পাশাপাশি বিচারপতি এস আব্দুল নাজির ও বিচারপতি দীপক গুপ্তাও ছিলেন।

৫৯৬ দিন আগে করা একটি আবেদনের এতদিন পরেও একটি বিভ্রান্তিমূলক উত্তর দেওয়া ছাড়া আর কিছুই করতে পারেনি আয়কর দফতর, সে বিষয়েও কোর্টের রোষের মুখে পড়তে হয় তাদের।

আরও পড়ুন- তিনমাস সময় দিন, তারপর সমালোচনা করবেন: ইমরান

আয়কর দফতরের আইনজীবীকে এদিন কড়া ভাষায় কোর্ট জানায়,’দয়া করে এরকম করবেন না। সুপ্রিম কোর্ট পিকনিকের জায়গা নয়। এভাবে কি দেশের সর্বোচ্চ আদালতকে দেখা উচিত?’

গাজিয়াবাদের আয়কর কমিশনার একটি পিটিশন ফাইল করেন। কোর্টকে জানানো হয় এই একই বিষয়ে ২০১২ সালে একটি মামলা দায়ের করা হয়। ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকে এই আবেদনের নিষ্পত্তি করা কেন গেল না সে বিষয়েও প্রশ্ন তুলেছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত। পাশাপাশি আয়কর দফতরের তরফে সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর তথ্য পেশ করার কারনে পিটিশনটি খারিজ করে কোর্ট।

চার সপ্তাহের মধ্যে জরিমানা স্বরূপ এক লক্ষ টাকা কোর্টের লিগেল সার্ভিস কমিটিকে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যা নাবালকদের মামলার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হবে।

প্রসঙ্গত, এলাহাবাদ কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা নিয়ে যায় আয়কর দফতর।

--
----
--