ভিনদেশের অর্ডারে তেজসের উৎপাদন বাড়াচ্ছে ভারত

নয়াদিল্লি: আরও বাড়াতে হবে তেজস বিমানের উৎপাদন৷ আজ একথা বলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ৷ বছরে আঠারোটা তেজস বিমানের উৎপাদন করা হবে বলে জানা তিনি৷ বিদেশ থেকেও এই মূহুর্তে তেজস বিমান কেনার ইচ্ছা প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানান তিনি৷

ভারতীয় বায়ুসেনার কাছে এই মূহুর্তে রয়েছে ৩১টি লডা়কু বিমান৷ অনুমোদন রয়েছে ৪২টির৷ হিন্দুস্তান এরনটিক্স লিমিটেডকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ জানিয়েছেন একক ইঞ্জিনের হাল্কা তেজস যুদ্ধ বিমানের উৎপাদন বাড়াতে হবে৷ তিনি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেন, সরকার অন্য কোনও লড়াকু বিমান নিয়েও এই পরিকল্পনা রেখেছে৷ বর্তমানে এইচএএল প্রতি বছর প্রায় আটটি তেজস উৎপাদন করছে৷ এই মূহুর্তে সরকার এই বিমানটির উৎপাদন সংখ্যা বাড়িয়ে ১৮টি করতে চাইছে৷ ভরতিয় বায়ুসেনার কাছে এই মূহুর্তে ৩১টি লড়াকু বিমান রয়েছে৷

প্রতিরক্ষামন্ত্রী আরও জানান, বেশ কিছু দেশ তেজস বিমান কেনার আগ্রহ দেখিয়েছে৷ তিনি জানিয়েছেন তেজস বায়ুসেনার যুদ্ধের প্রস্তুতি কায়েম রাখতে তেজসের সংখ্যা আরও বাড়ানো প্রয়োজন৷ কারণ এই মূহুর্তের সংখ্যা যা রয়েছে তা পর্যাপ্ত নয়৷ যে কোনও রকম যুদ্ধকালীন পিরস্থিতির মোকাবিলায় বিদেশি একক ইঞ্জিন লড়াকু বিমানের প্রয়োজন পরে৷ নির্মলা আরও জানান, কেন্দ্রীয় সরকার ‘মার্ক টু’ সংস্করণের আসার অপেক্ষায় রয়েছে এবং বেশ কিছু দেশ এইচএএল এর তৈরি এই বিমানের প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছে৷ তিনি বলেন, “আমরা হাল্কা যুদ্ধ বিমান এলসিএ কে এখনও ছেড়ে দিইনি৷ আমরা তেজস ছাড়া আর কোনও হাল্কা যুদ্ধ জেটের প্রতি আগ্রহ দেখাইনি৷ এইচএএলকে এলসিএ-র উৎপাদন বাড়াতে হবে৷”

- Advertisement -

এই একক ইঞ্জিনের তেজস মার্ক টু বিমানই সেনার প্রয়োজন মেটাতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী৷ সেনা আধিকারিকরা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সরকার যুদ্ধ বিমানের সংখ্যা কমে যাওয়ায় চিন্তিত৷ জেটের সংখ্যা বাড়াতে গ্লোবাল টেন্ডারিং প্রক্রিয়াটি শীঘ্রই চালু হতে পারে বলেও জানা গিয়েছে৷

ভারতীয় বায়ু সেনা ৪০টি তেজস মার্ট ওয়ানের অর্ডার দিয়েছে৷ এইচএএলকে ইতিমধ্যেই দুমাস আগে ৫০হাজার কোটি টাকায় তেজস মার্ক ওয়ান সংস্করণের ৮৩টি বিমান কেনার জন্য অনুরোধ প্রস্তাব দিয়ে রেখেছে৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রীর তরফ থেকে যা জানানো হয়েছে তাতে এলসিএকে উৎপাদন বাড়ানোর উপায় বের করতেই জোর দিতে বলা হয়েছে এ বিষয়টি পরিষ্কার৷ এর ফলে ভারতীয় বায়ুসেনা যে কোনও রকম আপৎকালীন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে সক্ষম হবে৷ শত্রু পক্ষকে খুব সহজেই কাবু করা যাবে৷

Advertisement ---
---
-----