বল বিকৃতির ব্লু-প্রিন্ট ছিল ‘ছদ্মবেশী’ কাঞ্চার

অভিষেক কোলে: কেপ টাউনে অস্ট্রেলিয়ার বল বিকৃতি কাণ্ডের অন্যতম দুই কুশীলব ক্যামেরন ব্যানক্রফট ও স্টিভ স্মিথকে ইতিমধ্যেই শাস্তি দিয়েছে আইসিসি৷নেপথ্যের নায়ক ডেভিড ওয়ার্নার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের রোষানল থেকে বাদ পড়লেও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অন্তর্তদন্তে প্রধান কালপ্রিট তিনিই৷ তাই অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের সঙ্গে অজি বোর্ড সর্বোচ্চ শাস্তিবিধান করেছে তাঁর জন্যও৷ লিডিং গ্রুপের সদস্য না হওয়ায় এবং দলনায়কের কথা মতো বলির পাঁঠা হয়ে তুলনায় কম শাস্তি পেয়েছেন ব্যানক্রফট৷ তবে আশ্চর্যজনকভাবে আইসিসি ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া, উভয়ের ক্ষোভের আঁচ ছুঁতে পারেনি অজি কোচ ড্যারেন লেম্যানকে৷ তার কারণটা একটু অন্যভাবে অনুমান করা যায়৷

আরও পড়ুন: স্মিথহীন অজি সফরে অ্যাডভান্টেজ ইন্ডিয়া

আসলে অজি ড্রেসিংরুমে বল বিকৃতির ব্লু-প্রিন্ট যখন তৈরি হয়, তখন সেখানে কোচ লেম্যান থেকেও ছিলেন না৷ স্মিথদের এমন রণকৌশলে যিনি মদত দিয়েছিলেন, তিনি আসলে লেম্যানের ছদ্মবেশে ‘অগ্নিপথ’এর কাঞ্চা চীনা৷ ভিলেনসুলভ স্বাভাবিক কটু বুদ্ধি বেরিয়ে ছিল কাঞ্চারূপী বলিউড তারকা সঞ্জয় দত্তের মাথা থেকেই! তাই আসল ভিলেন লেম্যান নন, কাঞ্চা চীনাই৷ কাঞ্চার কুবুদ্ধিই ‘অগ্নিপথ’এ ঠেলে দেয় স্মিথ-ওয়ার্নারদের৷

- Advertisement -

এই প্রতিবেদনের যথার্থতা বিচার করতে গেলে নিশ্চিতভাবেই হোঁচট খেতে হবে পাঠকদের৷ আসলে লেম্যান ও কাঞ্চারূপী সঞ্জয় দত্তের মধ্যে চেহারার চমকে যাওয়া মিলই এমন কৌতুক রচনায় উৎসাহিত করেছে৷ অস্ট্রেলিয়া দলের বল বিকৃতি নিয়ে ক্রিকেটবিশ্বে যেরকম রঙ্গ ব্যঙ্গের মহল তৈরি হয়েছে, তাতে বাড়তি মাত্রা জোগাতে পারে এই প্রতিবেদন৷

আরও পড়ুন: টি-টোয়েন্টিই আমার ফেভারিট ফর্ম্যাট: ঋদ্ধিমান

যদিও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া লেম্যানকে বেকসুর খালাস করে তাঁকে কোচের পদে বহাল রাখায়, বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মহলে৷ মাইকেল ক্লার্ক থেকে শুরু করে কেভিন পিটারসেন, মাইকেল ভন থেকে আকাশ চোপড়া, মুরলি কার্তিকের মতো প্রাক্তন ক্রিকেটাররা সাদারল্যান্ডদের এমন সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন৷ এমনকি অস্ট্রেলিয়ার প্রখ্যাত রেডিও প্রেজেন্টার অ্যালান জোনসও সোচ্চার হয়েছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এমন অবাক করা সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে৷ প্রত্যেকেরই ধারণা, লেম্যানকে ছাড়া অজি ড্রেসিংরুমে এমন পরিকল্পনা তৈরি হতে পারেনা৷ প্রকারান্তরে সবার মত, কোচ লেম্যানও অজি ক্রিকেটের এমন কলঙ্কিত অধ্যায়ের অন্যতম নায়ক৷ সুতরাং শাস্তি পাওয়া উচিত ছিল তাঁরও৷

আরও পড়ুন: ওয়ার্নারের বল বিকৃতি নিয়ে উঠে এল নতুন তথ্য

‘লেম্যান কিছুই জানতেন না!’ এই বিষয়টাই পিটারসেনের কাছে হাস্যকর মনে হয়েছ৷ মাইকেল ভন সরাসরি জানাচ্ছেন, বল বিকৃতি কাণ্ডের শিকড় আরও গভীরে ছড়িয়ে রয়েছে৷ মাত্র তিনজনে এমন গুরুতর সিদ্ধান্ত নিতে পারে বলে বিশ্বাস করেন না প্রাক্তন ইংল্যান্ড অধিনায়ক৷ বিশ্বকাপজয়ী অজি দলনায়ক ক্লার্ক স্পষ্ট জানাচ্ছেন, প্রকৃত সত্য উদঘাটিত হয়নি৷ তাঁর বিশ্বাস, পুরো গল্পটা এখনও সামনে আসেনি৷ অ্যালান জোনস আবার বিস্ময় প্রকাশ করেছেন কোচকে না জানিয়ে অধিনায়ক কিভাবে এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারেন, তা নিয়ে৷ জোনস প্রশ্ন তুলেছেন, কোচের হাতে যদি নিয়ন্ত্রণ না থাকে, তবে তাঁকে দায়িত্বে বহাল রাখার কারণ কি?

Advertisement
-----