বাংলার দূষিত মাটিতে আর মণীষী জন্মাচ্ছে না

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলার মাটি দুর্জয় ঘাঁটি। এই মাটিতে কোন প্রকারের অসাধু ব্যক্তিদের স্থান নেই। বারবার এমনই দাবি করে থাকেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, বাংলার মাটি পচে গিয়েছে বলে মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্য নেতা জয় বন্দোপাধ্যায়।

শুক্রবার নদিয়া জেলার এক জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই দাবি করেছেন জয় বাবু। তিনি জানিয়েছেন যে দীর্ঘ ৩৪ বছরের বাম শাসন এবং তার পরে ছয় বছরের ঘাস ফুল জামানায় দূষিত হয়ে গিয়েছে বাংলার মাটি। যার কারণে বাংলা থেকে এর কোনও মনীষী জন্ম নিচ্ছেন না।

দেশের প্রথম নোবেল জয়ী ব্যক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জন্মেছিলেন উত্তর কলকাতায়। ওডিষার কটক শহরে জন্মেছিলেন নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু। কিন্তু, সেই সময় ওডিষা অবিভক্ত বাংলার অঙ্গ ছিল এবং তিনি কলকাতাতেই থাকতেন। অস্কার জয়ী সত্যজিৎ রায়ও ছিলেন বঙ্গবাসী। এই ধরনের অসংখ্য উদাহরণ রয়েছে। যা গুনে শেষ করা যাবে না। কিন্তু, দীর্ঘদিন ধরে সেই তালিকা স্তব্ধ হয়ে রয়েছে।

- Advertisement -

রাজ্যে রাজনৈতিক দূষণের কারণে এই অবস্থা তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন অভিনেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, “দীর্ঘ দিন হল বাংলার মাটিতে কোনও মনীষী জন্ম নিছে না। এই বিষয়ে আমি আমার রামকৃষ্ণ মিশনের গুরুর কাছে প্রশ্ন করেছিলাম।” স্কুল জীবনের সেই রামকৃষ্ণ মিশনের গুরুদেবের উত্তরটিও প্রকাশ জনসভায় তুলে ধরেছেন জয় বাবু। তিনি জানিয়েছেন যে উড়োজাহাজ যে কোনও স্থানে নামতে পারে না। তার জন্য একটা এয়ারপোর্ট দরকার। ঠিক একইভাবে বিশেষ ভালো মানুষদের জন্মানোর জন্যেও একটা উপযুক্ত মাটি দরকার হয়। বাংলার সেই দুর্জয় মাটি এখন এর নেই, পচে গিয়েছে। সেই কারণেই ক্রমশ পিছিয়ে যাচ্ছে বাংলা। দেখা মিলছে না কোনও মনীষীর।

ওই দিন নদিয়ার জনসভায় ৬২ টি পরবার সিপিএম এবং তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করে। দলের নবাগত সদস্যদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন পদ্ম শিবিরের জাতীয় স্তরের নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

Advertisement ---
---
-----