যে শহরে নগ্ন হয়ে ঘুরতে একদম বাধা নেই

জার্মানির কিছু কিছু জায়গায় একেবারে নগ্ন হয়ে ঘোরাফেরা করা যায়! হ্যাঁ, ঠিকই পড়ছেন। এ সব জায়গায় মহিলা, পুরুষ স্বেচ্ছায় নগ্ন হয়ে থাকেন৷ এতে নাকি স্বাস্থ্যও ভালো থাকে৷ চলুন দেখি ঠিক কোথায় কোথায় প্রকাশ্যে নগ্ন হতে বাধা নেই৷

নুড স্পোর্টস ক্লাব

nude-spots-club

- Advertisement -

জার্মানিতে ‘নুড স্পোর্টস ক্লাবে’র  সংখ্যা কম নয়। এ সব ক্লাব ফ্রি বডি কালচারে বিশ্বাসী, অর্থাৎ একান্ত দরকার না হলে শরীর কাপড়ে ঢেকে রাখার পক্ষে নয় তারা৷ বিভিন্ন বয়সের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ নগ্ন ক্রীড়াসংঘের সদস্য৷ তারা নিয়মিত জার্মানিতের বিভিন্ন শহরে মিলিত হন৷

সাওনায় সবাই নগ্ন থাকেন

steam-bath

সাওনা বা স্টিম বাথ জার্মানিতে বেশ জনপ্রিয়৷ প্রায় সব শহরেই সাওনার ব্যবস্থা রয়েছে৷ আর সেখানে মহিলা, পুরুষ একসঙ্গে, নগ্ন অবস্থায় স্টিম বাথ নেন৷ তবে কেউ চাইলে শুধু মহিলা বা শুধু পুরুষের সাওনাও ব্যবহার করতে পারেন৷ এটা ব্যক্তিস্বাধীনতার ব্যাপার!

নিজের বাগান বা বারান্দায়

garden

না, খোলা রাস্তায় হঠাৎ করে নগ্ন হয়ে হাঁটাহাটি জার্মানিতে চালু নেই। তবে নিজের বাড়ির বাগানে বা বারান্দায় নগ্ন হয়ে ঘোরাফেরায় বাধা নেই৷ বাড়ি যদি রাস্তার পাশে আর সেই রাস্তা দিয়ে যদি আপনাকে বারান্দায় দেখা যায়, তাহলে জার্মান আইনে সেটা যারা দেখছে তাদের সমস্যা, আপনার নয়৷ বারান্দা আপনার, নগ্ন থাকার স্বাধীনতাও আপনার৷

‘নগ্ন বিচ’

nude-beach

জার্মানিতে কিছু সমুদ্রতট আছে, যেখানে পুরোপুরি নগ্ন হয়ে থাকা যায়৷ অর্থাৎ বিকিনি বা শর্টস পরারও কোনও বাধ্যবাধ্যকতা নেই৷ এ সব বিচে ‘এফকেকে’ লেখা থাকে৷ যে কেউ সেখানে যেতে পারেন৷ তবে অসংখ্য নগ্ন মানুষের মধ্যে পোশাক পরা কাউকে দেখতে খানিকটা বেমানান লাগে৷ তাই সেখানে যেতে চাইলে, নগ্ন হয়ে গেলেই উত্তম৷

নুড পার্ক

nude-park

শুধু সমুদ্রতট নয়, নগ্নতায় বিশ্বাসীদের জন্য আছে পার্কও৷ মিউনিখের ইংলিশ গার্ডেন এবং বার্লিনের টিয়ারগার্ডেনের কিছু অংশে নগ্নভাবে ঘোরাফেরা করা যায়৷ তাই গ্রীষ্মে সেখানে নগ্নদের দেখলে বিস্মিত হবেন না৷ তবে সব পার্কে নগ্ন হয়ে ঘোরা যায় না৷ এ সংক্রান্ত সাইন দেখার পর কাপড় খুললে উত্তম৷

প্রাইম-টাইমে নিষিদ্ধ

sexy-movie

জার্মান টেলিভিশনে প্রাইম-টাইমে নগ্ন কিছু প্রদর্শন কার্যত নিষিদ্ধ৷ তবে কথা আছে, যদি কোনও সিনেমার কাহিনির প্রয়োজনে একান্তই স্তনবৃত্তসহ নগ্ন স্তন প্রদর্শন প্রয়োজন পড়ে, তবে সেটা সম্ভব৷ সেসব সিনেমার আগে অবশ্য কোন বয়সিরা তা দেখতে পারবে, তা জানানো হয়৷ আর রাত এগারেটা থেকে সকাল ছ’টা অবধি ‘সফট পর্ন’ টিভিতে প্রচারে বাধা নেই, তবে বাড়াবাড়ি কিছু দেখানো যাবে না৷

Advertisement
---