সিডনি: বল বিকৃতির অভিযোগে অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়ক স্মিথ এবং ওয়ার্নারকে একবছরের জন্য সবধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসনে পাঠাল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷ টিভি ক্যামেরাতে ধরা পড়া আর এক অভিযুক্ত ওপেনার ক্যামেরন ব্যানক্রফটকে ৯ মাসের জন্য নির্বাসন দিয়েছে অজি ক্রিকেট বোর্ড৷আগেই অজি-প্রোটিয়া চতুর্থ টেস্ট থেকে তিনজনকে বরখাস্ত করেছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷

দেশের জার্সিতে এক বছর মাঠ নামতে না-পারার পাশাপাশি আগামী দু’ বছর দেশকে নেতৃত্ব দেওয়ার অধিকার কেড়ে নেওয়া হল দুই ‘প্রতারক’ অজি ক্রিকেটারের কাছ থেকে৷ বুধবার প্রেস বিবৃতিতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে এমনটা ঘোষণা করা হয়৷ যদিও তিন খেলোয়াড়ই শাস্তির বিরুদ্ধে আবেদন করত পারবেন৷ কিন্তু স্মিথরা আবদেন করতে পারবেন নির্বাসিত সময়ের মধ্যে৷ স্বাধীন কমিশনারের নেতৃত্ব ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার আচরণবিধি মেনেই শুনানি হবে৷

আরও পড়ুন: স্মিথ-ওয়ার্নারের জন্য আইপিএলের দরজা বন্ধ

যদিও বুধবারই ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দেশ ফিরছেন নির্বাসিত তিন ক্রিকেট স্মিথ, ওয়ার্নার এবং ব্যানক্রফট৷ দেশে ফেরার পর সিডনিতে কথা বললেন নির্বাসিত অজি ক্যাপ্টেন স্মিথ৷নির্বাসন কাটিয়ে আগামী বছর জুনে ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপের আগে অবশ্য দলে ফেরার সুযোগ পাবেন স্মিথ-ওয়ার্নাররা৷ কিন্তু দলে ফিরলেও বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্বের ব্যাটনটা ফিরে পাবেন স্মিথ৷

আরও পড়ুন: সানরাইজার্সের অধিনায়কত্ব ছাড়লেন ওয়ার্নার

নিউল্যান্ডস দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্টের তৃতীয় দিন দুপুরে টিভি ক্যামেরায় বল বিকৃতির ঘটনা ধরা পড়ার পর বিশ্বক্রিকেট তোলপাড় পড়ে যায়৷ দেখা যায় একটি হলুদ রংয়ের জিনিস দিয়ে বলে দাগ কাটার পর সেটি টাউজারের ভেতর ঢোকাচ্ছেন ব্যানক্রফট৷ টেলিভিশন ফুটেজে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে ব্যানক্রফট বলের ঘষা দিকে হলুদ জিনিসটি দিয়ে দাগ কাটছে এবং পরে পালিশ দিকটা প্যান্টে ঘষছে৷ পরিবর্ত ফিল্ডার পিটার হ্যান্সকম্ব মাঠে নামার পরই এই ঘটনা ঘটে৷ ফলে এই ঘটনা কোচ ডারেন লেম্যানের মস্কিষ্কপ্রসুত মনে করছে ক্রিকেটমহল৷

আরও পড়ুন:‘জয়, জয় এবং জয়’এই নীতিই কি অজিদের অসৎ বানিয়েছে!

এই ঘটনার পর তিন ক্রিকেটার স্মিথ, ওয়ার্নার ও ব্যানক্রফটকে দলকে তড়িঘড়ি বাদ দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷ ফলে জো’বার্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজের শেষ তথা চতুর্থ টেস্টে ‘প্রতারক’ তিন ক্রিকেটারের পরিবর্তে ম্যাট রেনশ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও জো বার্নসকে দলে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া৷ এই ঘটনার পরই স্মিথকে এক টেস্টের নির্বাসিন দেওয়ার পাশাপাশি চার ডিমেরিটস পয়েন্ট ও কেপ টাউনে টেস্টের ১০০ শতাংশ ম্যাচ-ফি কেটে নেয় আইসিসি৷ ব্যানক্রফটের তিন ডিমেরিটস পয়েন্ট এবং ৭৫ শতাংশ ম্যাচ-ফি কেটে নেওয়া হয়৷ যদিও ওয়ার্নারের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি আইসিসি৷

আরও পড়ুন: ‘বয়েজ ইন ব্লু’র ইংল্যান্ড সফরের আড়ালে বিরাটদের প্রস্তুতি

----
--