‘এবার আরও জোরদার হবে জঙ্গিদমন অভিযান’

শ্রীনগর: রমজানে প্রবলভাবে রক্তাক্ত হয়েছে কাশ্মীর। একের পর এক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের জওয়ান ঔরঙ্গজেব আর ‘রাইজিং কাশ্মীর’-এর সম্পাদক সুজাত বুখারিকে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছে গোটা দেশকে। তার সঙ্গে মঙ্গলবারের বড়সড় রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে নড়েচড়ে উঠেছে ভূস্বর্গ। এসবের মধ্যে কাশ্মীর পুলিশ স্পষ্ট জানিয়ে দিল যে কাশ্মীরে যাই হোক, জঙ্গিদের বিরুদ্ধে তাদের অপারেশন জারি থাকবে। মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠকে এমনটা জানিয়েছেন কাশ্মীর পুলিশের ডিজিপি এসপি বেদ।

বুধবার সকালে কাশ্মীরে রাজ্যপাল শাসনে সম্মতি জানান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এরপরই কাশ্মীরের রাজ্য পুলিশের প্রধান এসপি বেদ জানান রাজ্যপাল শাসনের জন্য কোনও অভিযানে কোনও প্রভাব পড়বে না। বলেন, ‘অপারেশন জারি থাকবে। শুধুমাত্র রমজানের সংঘর্ষবিরতির জন্যই অপারেশন বন্ধ রাখা হয়েছিল। তার আগেও অপারেশন চালানো হয়েছিল। এবার আগামিদিনে আরও বেশীমাত্রায় চলবে অভিযান। আর এবার অভিযান চালানো আরও সহজ হবে।’

তিনি আরও উল্লেখ করেন, রমজানে জঙ্গি কার্যকলাপ অনেক বেশি বেড়ে গিয়েছে উপত্যকায়। তবে এবার জোরদার অভিযান চালানো হবে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে। কাশ্মীরের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বড়সড় বদল আসবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। সংঘর্ষবিরতির ফলে, জঙ্গিরা সুযোগ পেয়ে গিয়েছিল বলেও মনে করেন তিনি। তিনি বলেন, অনেক সময় জঙ্গিদের উপস্থিতির খবর থাকা সত্বেও অভিযান চালানো যায়নি। ফলে সেই সুযোগে হামলা চালিয়েছে জঙ্গিরা।

সুজাত বুখারি হত্যার ঘটনা প্রসঙ্গে ডিজিপি বলেন, শীঘ্রই তদন্তের কিনারা হবে। তদন্তের স্বার্থে ‘সিট’ গঠন করা হয়েছে। ডিআইজি (সেন্ট্রাল) কাশ্মীর নিজে এই বিষয়ে তদন্ত করছেন। তবে এই বিষয়ে এখনও কথা বলতে রাজি নব পুলিশ। ঔরঙ্গজেবের হত্যাকারীদেরও শীঘ্রই খুঁজে বের করা হবে বলে উল্লেখ করছেন তিনি।

মঙ্গলবার পিডিপি -র সঙ্গে জোট ছিন্ন করার কথা জানিয়ে দেয় বিজেপি। বিজেপির তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, দেশের স্বার্থে কোনও ভাবেই সংঘর্ষ বিরতি মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। জম্মু-কাশ্মীরে মেহবুবা মুফতি সরকার থেকে সমর্থন বিজেপি প্রত্যাহার করে নেওয়ার ফলে রাজ্যে পতন জোট সরকারের। এরপর বুধবার জারি হয় রাজ্যপাল শাসন।

Advertisement
----
-----