ভুবনেশ্বর: সুপ্রিম কোর্টের নয়া প্রস্তাবের পর নতুন করে শিরোনামে জগন্নাথধাম পুরী৷ জগন্নাথদেবের রথযাত্রার আগে ফের নতুন করে চাপানউতোর শ্রীক্ষেত্রে৷ ইতিমধ্যেই শঙ্করাচার্য নিশ্চলানন্দ সরস্বতী ও গজপতি রাজা দিব্যসিংহ দেব পুরীর মন্দিরে সর্বধর্মের মানুষের প্রবেশাধিকার নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন৷ রাজ্য দিব্যসিংহ দেবকেই জগন্নাথদেবের প্রথম সেবাইত হিসাবে ধরা হয়৷

আরও পড়ুন: রাশিয়ার হারের সঙ্গে জুড়ে থাকল ব্রাজিল!

মন্দির তৈরির পর থেকে পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দিরে শুধুমাত্র হিন্দুদেরই প্রবেশাধিকার রয়েছে৷ কিন্তু গত ৫ জুলাই জগন্নাথ মন্দির কর্তৃপক্ষকে দেশের সর্বোচ্চ আদালত এক প্রস্তাবে জানায়, সব ধর্মের মানুষের জন্যই জগন্নাথদেবের মন্দিরের দ্বার খোলা রাখতে হবে৷

এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই বিভিন্ন মহল থেকে প্রতিবাদের সুর তোলেন ‘হিন্দুত্ববাদীরা’৷ বিশ্ব হিন্দু পরিষদও সুপ্রিম কোর্টের এই প্রস্তাবকে কিছুতেই মেনে নিতে পারেনি৷ জানিয়েছে, সুপ্রিম কোর্টে রিভিউ পিটিশন দাখিল করবে তারা৷ যাতে এই প্রস্তাব আদালত পুনর্বিবেচনা করে দেখে৷

আরও পড়ুন: হিন্দু পরিচয়ে বিয়ে করে মহিলাকে মুসলিম ধর্মগ্রহণে চাপ স্বামীর

গোবর্ধন পীঠের শঙ্করাচার্য স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, সনাতন হিন্দু ধর্মের প্রাচীন পরম্পরা লঙ্ঘন করে সবধর্মের মানুষকে পুরীর মন্দিরে ঢোকার অধিকার প্রদান আমরা মেনে নিতে পারছি না৷ অন্যদিকে গজপতি রাজা দিব্যসিংহ দেবের কথায়, রথযাত্রার সময় ভগবান জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রাকে মন্দিরের বাইরে নিয়ে আসা হয় যাতে সর্বধর্মের মানুষ তাঁদের দেখতে পারেন৷ তাঁদের আশীর্বাদ নিতে পারেন৷ স্নানযাত্রা উপলক্ষ্যেও লক্ষ লক্ষ মানুষ তাঁকে দেখার সুযোগ পান৷

গজপতি রাজা জানান, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সবসময়ই সর্বশেষ সিদ্ধান্ত৷ রথযাত্রার পর মন্দির কমিটি বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় বসবে৷ শ্রী জগন্নাথ মন্দির প্রশাসন সেইমতোই পদক্ষেপ করবে৷ বিশ্ব হিন্দু পরিষদের ওড়িশার দায়িত্বপ্রাপ্ত বদ্রীনাথ পট্টনায়ক পিটিআইকে জানান, মন্দির নিয়ে কোনরকম সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে পুরীর শঙ্করাচার্য স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী ও গজপতি রাজা দিব্যসিংহ দেবের পরামর্শ নেওয়া উচিৎ ছিল৷

আরও পড়ুন: ভগবান রামও ধর্ষণ রুখতে পারবেন না: বিজেপি বিধায়ক

----
--