‘বিরোধীদের মধ্যে নরেন্দ্র মোদীর মতো কোনও নেতা নেই’

ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি : বিরোধীদের নিশানা করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং৷ তাঁর মতে বিরোধীদের একমাত্র লক্ষ্য যেভাবেই হোক বিজেপিকে হারানো৷ কিন্তু তাঁরা বুঝতে পারছেন না যে তাঁদের মধ্যে কোনও নরেন্দ্র মোদী নেই, যিনি মানুষের মন জয় করবেন৷

কংগ্রেসকে আক্রমণ করে রবিবার বিজেপির কর্মসমিতির বৈঠকে তিনি বলেন এই দলের নির্দিষ্ট কোনও স্ট্র্যাটেজি নেই৷ তারা শুধু জানে মোদী সরকার ও বিজেপির বিরোধিতা করতে৷ তাও কোনও সুর্নিদিষ্ট দিশা নেই তাদের বিরোধিতার৷ এতে মানুষের কাছ থেকে আরও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছেন তাঁরা বলে দাবি করেন রাজনাথ সিং৷

তিনি আরও অভিযোগ করেন ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে যে ভাবেই হোক মহাজোট করতে চায় বিরোধীরা৷ কিন্তু সেই জোটের জন্য তারা নিজেদের নীতি বিসর্জন দিতেও রাজী৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রশ্ন করেন যে বিরোধীদের কোনও নীতি নেই, তাদের মানুষ কীভাবে বিশ্বাস করবেন? সদর্থক বিরোধিতা না করে তাঁরা ক্ষমতার পিছনে ছুটছেন বলে এদিন অভিযোগ করেন তিনি৷

নরেন্দ্র মোদীর উদ্দ্যেশ্য ও লক্ষ্যের প্রশংসা করে রাজনাথ বলেন, যে দলে নরেন্দ্র মোদীর মতো নেতা রয়েছেন, সেই দলের প্রতি মানুষ যে ভরসা রাখবেন, তা বলাই বাহুল্য৷ কিন্তু বিরোধীদের মধ্যে নরেন্দ্র মোদীর মতো কোনও পথ প্রদর্শক নেতা নেই বলে দাবি করেন তিনি৷ রাজনাথ বলেন কংগ্রেসের মত দল শুধু জানে ভালো কাজ থামিয়ে দিতে৷ সেজন্যই নরেন্দ্র মোদীর প্রতিটি কাজের সমালোচনা করে তারা৷

এরআগে শনিবার দিল্লিতে বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকের প্রথম দিনেই ঘোষণা করা হয় আগামী বছর লোকসভা ভোটের আগে দলের সভাপতি পদের নির্বাচন হচ্ছে না। দলের সভাপতি অমিত শাহর নেতৃত্বেই বিজেপি আগামী লোকসভা ভোটে লড়বে।

মূল সম্মেলন শুরুর আগে দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন অমিত শাহ। সেখানে তাঁর ভাষণে অমিত বলেন, বিরোধীদের চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করে ২০১৯ সালে বিজেপি আরও বেশি আসন জিতে সরকার গঠন করবে। সেই সুরই শোনা গেল রাজনাথ সিংয়ের গলায়৷ তিনি বলেন ২০১৪ সালের থেকেও ভালো ফল হবে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে৷

প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ২০২০-র প্রশংসা করে রাজনাথ আরও বলেন মানুষ বেছে নেবেন তাদের নেতাকে৷ কারণ মানুষই সঠিকটা নির্বাচন করতে পারেন৷ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে মোদীর লড়াই মানুষ দেখেছেন, তাই বিজেপির অবস্থানও তারা জানেন বলে আশাপ্রকাশ করেন রাজনাথ সিং৷

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের শেষে বিজেপি শাসিত রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে ভোট হওয়ার কথা। একই সঙ্গে ভোট হবে কংগ্রেস শাসিত মিজোরামে। তেলেঙ্গানা বিধানসভা ভেঙে দিয়ে একই সময়ে ভোট গ্রহণের আরজি জানিয়েছেন টিআরএস নেতা ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও।

----
-----