স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বিজেপি, সিপিএম ও কংগ্রেস, এই তিন বিরোধী দল পরিকল্পনা করে বাংলাকে অসম্মান করছে৷ পঞ্চায়েত মামলায় শীর্ষ আদলতের রায় প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷

পঞ্চায়েত মামলায় শীর্ষ আদলতের রায়ে জয় হয়েছে রাজ্য সরকারের৷ স্বস্তিতে রাজ্য নির্বাচন কমিশনও৷ আদালতের স্পষ্ট বিনা প্রতিন্দিন্দ্বতায় জয়ী আসনে ফের ভোট হবে না৷ এর ফলে জয়ী প্রার্থীদের নিয়ে বোর্ড গঠনে কোনও বাঁধা রইল না৷ শুক্রবার নবান্নে এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘মিথ্যে কথা বলে নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থে বিরোধীরা নিরবিচ্ছিন্নবাবে বাংলাকে অপমান করে যাচ্ছে৷ আজ কোর্টের রায়ে তা প্রামাণ হয়ে গেল৷’’

Advertisement

আরও পড়ুন: আদালতে পঞ্চায়েত মামলার রায়ে ‘ব্যাকফুটে’ বিরোধীরা

বিনা প্রতিন্দিন্দ্বিতায় জয়ী প্রার্থীদের বাদ দিয়েই গ্রাম পঞ্চায়েতে, পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদে বোর্ড গঠনের নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট৷ এর ফলে গ্রাম বাংলার উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে বলে অভিযোগ ছিল রাজ্য সরকারের৷ এদিনের রায়ের পর সেই বাঁধা আর থাকলো না৷ ফলে খুশি শাসক শিবির৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘আদালতের রায়ে মানুষের রায়৷’’

স্থানীয় নির্বাচনে বিনা প্রতিন্দন্দ্বিতায় প্রার্থীদের জয়কে বড় করে দেখতে নারাজ রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান৷ বেলপাহাড়ির উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, ‘‘জঙ্গলমহলের অনেক জায়গায় স্থানীয় মোড়লরা তৃণমূলকে প্রার্থী দাঁড় করাতেই দেয়নি৷ স্থানীয় নির্বাচনে এই ধরণের বিষয়গুলি হতেই পারে৷’’

আদালতের রায়ের পর বিরোধীরা বলেছেন রাজ্যে গণতন্ত্রের নামে প্রহসন হয়েছে৷ এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী প্রশ্ন, ‘‘জেলা পরিষদের ২৪ শতাংশ আসনে বিরোধীরা প্রার্থী দিতে পারেনি৷ বাকিগুলিতে কেন ওদের ফল ভাল হল না৷’’

আরও পড়ুন: পুলিশের গুলি খেয়ে পলাতক ঝাড়খণ্ডিরা আসছেন বাংলায়: মমতা

এদিনের পঞ্চায়েত রায়ে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছে আইনে না থাকায় অনলাইনে প্রার্থীদের মনোনয়ন দাখিল গ্রাহ্য হবে না৷ মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘এটা ভাল বিষয়৷ আইন সবার জন্য সমান৷’’

বিরোধীদের কটাক্ষ করে সব শেষে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘অপপ্রচার যতই হোক আগামী ভোটেই মানুষ এর জবাব দেবে৷’’

----
--