লন্ডন: ৯/১১ কাণ্ডে ওসামার পরই মহম্মদ আটার নাম শিরোনামে ছিুল৷ সেই মহম্মদ আটার মেয়েকে বিয়ে করল ওসামা বিন লাদেনের ছেলে৷ বিয়ের খবর সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছে লাদেনেরই পরিবার৷ আমেরিকার শীর্ষ পত্রিকা গার্ডিয়ানকে বিয়ের খবর দিয়েছে লাদেনের পরিবার৷

ওসামার ছেলে হামজা-বিন-লাদেন বর্তমানে আল কায়দার সুপ্রিমো৷ ওসামার মৃত্যুর পর আল কায়দার সমস্ত দায়িত্ব সামলাচ্ছে হামজা৷ শোনা যায়, ২০০১ সালে আমেরিকা হামলার গোটা কর্মকাণ্ড মহম্মদ আটার নেতৃত্বেই হয়৷ তথ্য প্রযুক্তির ধার না ধেরে ওসামার সঙ্গে চিঠি মারফত কথা বলত আটা৷ আমেরিকায় থেকে পাইলটের প্রশিক্ষণ নেয় এই জঙ্গি৷ আটার বিমান অপহরণ, টুইন টাওয়ারকে মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া এই সমস্ত প্রক্রিয়া আটার হাত ধরেই হয়৷ তার বদলে মহম্মদ আটার পরিবারের সমস্ত দায়িত্ব নেয় আলকায়দা৷ কারণ, টুইন টাওয়ারে বিমান ঢোকালে আটা যে নিজেও বাঁচবে না তা জানাই ছিল৷ আমরিকার তদন্তকারীরা জানতে পারে, আটার পরিবারকে প্রচুর টাকা ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেয় আলকায়দা৷ হামজার আটার মেয়েকে বিয়ে করার পরিকল্পনা অনেক আগের বলেই মনে করা হচ্ছে৷

Advertisement

লাদেনের তৃতীয় স্ত্রীর ছেলে হামজা৷ অ্যাবেটাবাদে লাদেনের উপর মার্কিন সেনার হামলার সময় তার সঙ্গেই ছিল হামজার মা খইরিয়া সাবার৷ ওসামার দুই ভাই আহমেদ ও হাসান গার্ডিয়ানকে জানায়, আফগানিস্তানেই আটার মেয়েকে বিয়ে করেছে হামজা৷ তবে এখনও নিশ্চিত খবর পাওয়া যায়নি৷ লাদেনের মৃত্যুর পর সমর্থকদের নিয়ে আল কায়দার আর একটি শাখা তৈরি করে হামজা৷ যার নাম আজমাইল আল জাওয়াহারি৷

২০০৯ সালে অ্যাবেটাবাদে মার্কিন হামলায় বেঁচে থাকা লাদেনের বাকি স্ত্রী ও সন্তানদের আশ্রয় দিয়েছিল সৌদি আরব৷ সৌদি আরবের তৎকালীন রাজা মহম্মদ বিন নায়েফ তাদের উদ্বাস্তু পরিচয় দিয়ে আশ্রয় দেয়৷ তাদরে সঙ্গে রীতিমত যোগাযোগ রেখে চলে লাদেনের মা আলিয়া গাহেম৷ হামজার বিয়ের খবর জানেনা গাহেম বলেই গার্ডিয়ান সূত্রে খবর৷ তবে, মহম্মদ আটার মেয়েকে বিয়ে করে ২০০১ সালে লাদেনের দেওয়া কথা রেখেছে হামজা বলে মনে করছে ওসামার আর এক ছেলে খালিদ৷

----
--