‘রাজ্যহারা’ পাকিস্তানের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইশক দার

লন্ডন: প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইশক দার ও তাঁর স্ত্রীর কুটনৈতিক পাসপোর্ট বাতিল করল পাকিস্তান সরকার। এই মুহূর্তে তাঁরা দুজনই লন্ডনে রয়েছেন।পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট তাদের হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিলেও সময়ের মধ্যে তারা তা করেননি। আর একারনেই তাদের পাসপোর্ট বাতিল করা হয়।এবং এর জেরেই দেশে ফিরতে পারছেন না তারা।

আরও পড়ুন: কৃষ্ণজন্মাষ্টমীর পর রাজ্য জুড়ে বলরাম জয়ন্তী পালন করবে বিজেপি

২০১২ সালে যখন দার পাকিস্তান সেনাটের বিরোধী নেতার পদে আসেন,তখন ইশক দার ও তাঁর স্ত্রী তাদের ‘ব্লু’ পাসপোর্ট কুটনৈতিক পাসপোর্ট পরিণত করেন। ২০১৩ সালের জুন মাসে বিরোধী দলনেতা হিসেবে পদত্যাগ করার পরও ইশক দার ও তাঁর স্ত্রী সেই একই পাসপোর্ট ব্যবহার করতে থাকেন। ততদিনে পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েছেন ইশক দার।

- Advertisement -

বিদেশমন্ত্রকের দফতর সূত্রে খবর, নিয়ম অনুযায়ী প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইশক দার-এর উচিৎ ছিল পদত্যাগের ৩০ দিনের মধ্যে তাঁর সেই পাসপোর্ট সংশ্লিষ্ট দফতরের হাতে তুলে দেওয়া। কিন্তু তিনি তা করেননি। এদিকে লন্ডনে চিকিৎসার জন্য যাওয়ার আগেও তিনি সেই পাসপোর্ট জমা দেননি। কিন্তু ব্লু পাসপোর্টের জন্য আবেদন জানান। যা এখনও পর্যন্ত তার হাতে আসেনি। এবার পাকিস্তান সরকার তাঁকে নতুন পাসপোর্ট দেওয়ার আগেই তার পুরানোটি বাতিল করে দিল। যার জেরে বর্তমানে ‘রাজ্যহারা’ প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইশক দার ও তাঁর স্ত্রী৷

আরও পড়ুন: অনুব্রত আর পুলিশ দিনের বেলায় গাঁজা খায়: দিলীপ ঘোষ

Advertisement
---