ধর্ষিতা পাকিস্তানি শিশুকে পুড়িয়ে খুন

লাহোর: টানা দু’দিন নিখোঁজ ছিল শিশুটি৷ পরে তাকে যখন পাওয়া যায় দেহের বেশিরভাগ অংশই পোড়া৷ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা বলেন, তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে৷ ধর্ষকরা প্রমাণ লোপাটে পুড়িয়ে দিতে চেয়েছে৷ তবে চিকিৎসকদের আপ্রাণ চেষ্টাতেও বাঁচেনি সেই শিশু৷ মঙ্গলবার তার মৃত্যু হতেই ক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে লাহোরের জিন্না হাসপাতাল এলাকা৷ রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ শুরু করেছেন মৃত শিশুর আত্মীয়রা৷

ঘটনা পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের চিচাওয়ান্তি এলাকার৷ স্থানীয় এক শিশুকন্যাকে ধর্ষণ ও পুড়িয়ে খুনের ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, দ্রুত ধর্ষকদের গ্রেফতার করে চরম শাস্তি দিক সরকার৷ ঘটনায় বিভিন্ন মহল থেকে ছড়িয়েছে ক্ষোভ৷

মৃত শিশু দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ত৷ গত রবিবার থেকে সে নিখোঁজ ছিল৷ দুদিন তার খোঁজ মেলেনি৷ পরে গ্রামেরই কাছে রাস্তার ধারে তার আধপোড়া দেহ পাওয়া যায়৷ তখনও বেঁচে সেই শিশু৷ দ্রুত তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান গ্রামবাসীরা৷ অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে লাহোরে পাঠানো হয়৷ তারপরেই মারা যায় সেই শিশু৷

রয়টার্স জানাচ্ছে, পাকিস্তানে সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বিকৃত মনোরোগী৷ সেই কারণে বেড়েছে ধর্ষণের ঘটনা৷ চলতি বছর জয়নাব খুনের ঘটনায় উত্তাল হয়েছিল পাকিস্তান৷ এবারও সেই শিশুকন্যার ধর্ষণ ও পুড়িয়ে খুনের ঘটনায় পরিস্থিতি ঘোরালো হয়ে উঠেছে৷
পাকিস্তানে মহিলা

----
-----