তেজস ভারতের ভবিষ্যত : বায়ুসেনা প্রধান

নয়াদিল্লি: পাকিস্তানে হাতে যদি জেএফ ১৭ থাকে, ভারতের হাতে তবে তেজস রয়েছে৷ ভারতীয় ভূখন্ডের আকাশকে সুরক্ষা দেওয়ার যথেষ্ট ক্ষমতা রয়েছে তেজসের। নিজেদের শক্তি প্রসঙ্গে এমনই জানালেন বায়ুসেনা প্রধান বি এস ধানোয়া৷

তাঁর মতে জেএফ ১৭ পাকিস্তানের বর্তমান হতে পারে৷ তবে তাকে টক্কর দেওয়ার জন্য তৈরি তেজস, ভারতের ভবিষ্যত৷ প্রায় সাড়ে ১৩ মিটার লম্বা আর ১২ টন ওজনের এই তেজস যুদ্ধবিমানগুলোর সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৩৫০ কিলোমিটার।

আরও পড়ুন: ‘সবক্ষেত্রেই পাকিস্তানকে বয়কট করা উচিত ভারতের’

জেএফ ১৭ হালকা ওজনের, একটি ইঞ্জিন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত কমব্যাট এয়ারক্রাফট৷ পাকিস্তান ও চিনের যৌথ সহযোগিতায় এই যুদ্ধবিমান নির্মিত৷ একটি বইয়ের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বায়ুসেনা প্রধান বলেন, এখানে তেজস ও জেএফ ১৭ -এর তুলনা করা হয়েছে৷ তবে তিনি কিন্তু তেজসকেই এগিয়ে রাখবেন৷ কারণ তেজস ভবিষত্যের লড়াইয়ে সক্ষম৷

ভারতের নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি যুদ্ধবিমান ‘তেজস’ নি:সন্দেহে ভারতীয় বায়ুসেনার মুকুটে গুরুত্বপূর্ণ পালক৷ ফোর্থ জেনারেশন হালকা ওজনের এয়ারক্র্যাফট এটি। একাধিক দায়িত্ব পালনে সক্ষম। ভারতীয় বায়ুসেনায় মিগ ২১ এবং মিগ ২৭ বিমানের অভাব পূরণ করেছে তেজস। বায়ু থেকে বায়ু মিসাইল উৎক্ষেপণে তেজস সক্ষম। সক্ষম আকাশ থেকে ভূমি মিসাইল উৎক্ষেপণেও। এছাড়াও জাহাজ বিধ্বংসী মিসাইল উৎক্ষেপণে পারদর্শী তেজস।

আরও পড়ুন: আংশিক ভাবে অকেজো উত্তর কোরিয়ার পরমাণু পরীক্ষাগার, দাবি চিনের

ভারতীয় বায়ু সেনার সবথেকে বড় যুদ্ধ মহড়া গগনশক্তিতে নিজের ক্ষমতা প্রদর্শন করেছে তেজস৷ চিন ও পাকিস্তানের যেকোন চ্যালেঞ্জের মোকাবিলায় আকাশ যুদ্ধে কতটা প্রস্তুত ভারত তা জানাতেই এই মহড়া হয়৷

----
-----