ইসলামাবাদ: ভালোবাসার মানুষের সঙ্গে ঘর বাঁধার স্বপ্ন কে না দেখে৷ পরিবারের চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে এমনই এক স্বপ্ন দেখেছিলেন পাকিস্তানের এক তরুণী৷ পরিবারের বিরুদ্ধে গিয়ে প্রিয় মানুষটির সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন তিনি৷ আর তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তরুণ সাংবাদিক আজমল জোইয়া৷ এটাই ছিল তাঁর অপরাধ৷ নিজের জীবন দিয়ে সেই ‘অপরাধে‘র মাশুল গুনলেন তিনি৷

সোমবার বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন বছর ৩০-এর জোইয়া৷ সেই সময় তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তিন দুষ্কৃতী৷ সোমবার সন্ধ্যায় মৃত্যু হয় তাঁর৷ ঘটনার সময় জোইয়ার বাইকে ছিলেন তাঁর এক তুতো ভাই৷ গুলি লেগেছে তাঁরও৷ তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক৷
পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, ‘‘ পরিবারের অমতে প্রেমিকের সঙ্গে বিয়ে করেছিলেন ওই তরুণী৷ তাঁদের বিয়েকে সমর্থন জানিয়েছিলেন আজমল জোইয়া৷ এই অপরাধেই তাঁকে খুন করে ওই তরুণীর পরিবারের সদস্যরা৷ এই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷

জোইয়ার মৃত্যুর প্রতিবাদে পঞ্জাব প্রদেশে বিক্ষোভ মিছিল বার করেন সাংবাদিকরা৷ বাকি অপরাধীদের মুক্তির দাবি জানিয়ে সরব হন তাঁরা৷

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে অনার কিলিং নতুন কোনও ঘটনা নয়৷ পরিবারের অমতে বিয়ে করে পরিবারের হাতে বলি হতে হয়েছে অসংখ্য মেয়েকে৷ অনেক সময় কোপ এসে পড়েছে যুগলের সমর্থনে দাঁড়ানো মানুষটির উপরে৷ এক্ষেত্রেও সেটাই ঘটল৷

----
--