নয়াদিল্লি: দেশে কর সংক্রান্ত প্রতারণা আটকাতে বার বার সরকার পদক্ষেপ করলেও প্রতারকরা ঠিক নিত্য নতুন উপায় বের করে ফেলছেন৷ আর তার ফলে ভুগতে হচ্ছে নির্দোষ কর দাতাকে৷ সম্প্রতি দিল্লিতে ২৭ বছরের এক মধ্যবিত্ত ব্যক্তিকে একেবারে চমকে দিয়ে আয়কর দফতর থেকে বড় অংকের কর চেয়ে নোটিস এসে গিয়েছে৷

কারণ ওই ব্যক্তি দাবি করেছেন , তাঁর প্যান কার্ডের তথ্য ফাঁস হয়ে গিয়েছে এবং তারই জেরে অন্য কেউ সেই প্যান নম্বর ব্যবহার করেছেন বড় অংকের লেনদেনে৷ তবে শুধু তাঁর নামে বড় অংকের লেনদেনই হয়নি, পাশাপাশি তিনি জানতে পেরেছেন তাঁর নাম ব্যবহার করা হচ্ছে ১৩টি সংস্থার ডিরেক্টর হিসেবে৷ পুরো বিষয়টি গত জানুয়ারিতে তিনি জানতে পারেন যখন তাঁর কাছে আয়কর দফতর থেকে নোটিস পাঠায়৷

পড়ুন:খরচ বাঁচাতে কোপ পড়ছে ব্যাংকের বিদেশের শাখায়

ওই নোটিস পাওয়ার পর তিনি প্রতারিত হয়েছেন বলে পুলিস এবং এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের কাছে অভিযোগ জানান৷ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন , প্রথমে তিনি বিষয়টি গুরুত্ব দিতে চাননি কিন্তু আয়কর দফতরের কাছ থেকে ফোন কল পেয়ে তিনি জানতে পারেন তাঁর প্যান কেমন করে ব্যবহার করা হয়েছে বড় অংকের লেনদেনে যার পরিমাণ হল ৬১.৩৭ লক্ষ টাকা ৷

ওই অর্থ সিঙ্গাপুরে কোনও এক ম্যাক্সকার্ট ইমপেক্স কোম্পানি থেকে গিয়েছে ডায়নামিক টেলেকন ট্রেডিং লিমিটেডে৷ পরে পরীক্ষা করে ওই দিল্লিবাসী লক্ষ্য করেন যে, ম্যাক্সকার্ট ইমপেক্স কোম্পানির মালিক হিসেবে তিনি গোটা লেনেদেনটাই করেছেন৷ গোটা লেনদেনটাই হয়েছে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের জনকপুরি শাখা থেকে৷ এরপরে সেই ব্যাংকের শাখায় যাওয়া হলে দেখা যায় সেখানে তাঁর ভোটার কার্ড , প্যান কার্ড এবং ছবি সবই রয়েছে শুধু তার সাক্ষর মেলেনি৷ আপাতত বিষয়টি দিল্লি পুলিশের অর্থনৈতিক দমন শাখা তদন্ত করছে৷

----
--