কলকাতা: ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যজুড়ে সবুজ-ঝড়৷ প্রতিটি জেলায় গ্রাম পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদের অধিকাংশ আসনেই জয় পেয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস৷

আরও পড়ুন: ‘বিজেপিকে গালি দেওয়ার জন্য দুধকুমারকে জিতিয়েছি’ আরও পড়ুন: মোচড় দিয়ে কান্না উঠে আসবে আজ মা-ছেলের বুকে

Advertisement

প্রত্যাশা মতোই দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিজেপি৷ আর তৃতীয় স্থানে রয়েছেন অন্যান্য জয়ী প্রার্থীরা৷ সেই জয়ীদের মধ্যে যেমন ছোট দলগুলি আছে, তেমনই আছেন নির্দল প্রার্থীরা৷ নির্দলদের মধ্যে একটা বড় অংশই বিক্ষুব্ধ তৃণমূল৷ আর যথারীতি এবারও খারাপ পারফরম্যান্স অব্যাহত রইল বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের৷

আরও পড়ুন: দেহ ফিরে পেতে আদালতের দ্বারস্থ সিপিএম দম্পতির ছেলে আরও পড়ুন: সুখবর! শিক্ষক নিয়োগে ছাড়পত্র দিল আদালত

গভীর রাতেও চলছে গণনা৷ এখনও পর্যন্ত যা ফলাফল মিলেছে, তাতে তৃণমূল কংগ্রেস গ্রাম পঞ্চায়েতের ২১ হাজার ৪১৫ আসনে জিতেছে ও এগিয়ে রয়েছে৷ বিজেপির পক্ষে রয়েছে ৫৭৪৫টি আসন৷ বামফ্রন্ট পেয়েছে ১৭০৩টি আসন৷ কংগ্রেসের পক্ষে রয়েছে ৭০৬টি আসন৷ ১৮৯৩টি আসন গিয়েছে অন্যান্যদের দখলে৷

পঞ্চায়েত সমিতিতে তৃণমূলের পক্ষে রয়েছে ৪৯৫৮টি আসন৷ বিজেপির দখলে যাচ্ছে ১৩৮ আসন৷ কংগ্রেসের কাছে রয়েছে ১৩৪টি আসন৷ নির্দলরা পেয়েছে ১২৬টি আসন৷

আরও পড়ুন: তিন দিন আগেই রাজ্যে ঢুকবে বর্ষা

জেলা পরিষদের ৬২৪টি আসন জিতেছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ ২৩টি আসন জিতেছে বিজেপি৷ মাত্র একটি আসন জুটেছে সিপিএমের ভাগ্যে৷ কংগ্রেসের অবস্থা অনেকটা ভালো৷ তারা পেয়েছে জেলা পরিষদের ৬টি আসন৷ ২টি আসন নির্দলের দখলে রয়েছে৷

রাজ্যের সমস্ত জেলা পরিষদে জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস৷ দশটি জেলা পরিষদ বিরোধী শূন্য৷ দুই মেদিনীপুর, দুই বর্ধমান, দুই ২৪ পরগনা, বাঁকুড়া, হুগলি, জলপাইগুড়ি ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদে বিরোধীরা কোনও আসনই পায়নি৷

ভোট পরবর্তী হিংসায় উত্তপ্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনা৷ সোনারপুরের পর কাকদ্বীপেও বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে হামলার অভিযোগ৷

আরও পড়ুন: ভোটের হিংসার বলি তৃণমূলের জয়ী প্রার্থী

দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাথরপ্রতিমায় হেরে গিয়ে আত্মঘাতী এক বিজেপি প্রার্থী৷

উত্তর ২৪ পরগনার হাবরায় ভোটের দিন আক্রান্ত হয়েছিলেন এক তৃণমূল প্রার্থী৷ পরে তিনি জিতেও যান৷ বিপ্লব সরকার নামে ওই তৃণমূল নেতার মৃত্যু হয়েছে শুক্রবার৷

ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদের ১৬টি আসনের মধ্যে ১৩টি আসনে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী৷ ওই জেলা পরিষদ তৃণমূলের দখলে এল৷ ঝাড়গ্রাম জেলা পরিষদের বিদায়ী সভাধিপতি সমায় মান্ডি ও সহ-সভাধিপতি সোমা অধিকারী পরাজিত হলেন৷

আরও পড়ুন: বিজেপির ‘কর্ণাটক ফর্মুলা’ বিরোধীদের হাতে তুলে দিল অস্ত্র

গোসাবায় বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষের অভিযোগ৷ একাধিক জায়গায় বাড়ি ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠেছে৷ আবার বাসন্তীতে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের দু’টি গোষ্ঠীর মধ্যে লড়াইয়ের জেরে হামলা ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে৷

ঝাড়গ্রামের হাতিবাড়ি এলাকায় তৃণমূলের কার্যালয় ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠেছে৷ তৃণমূলের দাবি, এই ঘটনায় বিজেপি জড়িত৷

গণনা ঘিরে গোলমাল অব্যাহত৷ দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাটে বৃহস্পতিবার রাতেই গোলমাল ছড়ায়৷

আরও পড়ুন: বহু জায়গায় বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে ভাঙচুর

দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরে বিজেপি সমর্থকদের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে৷ অন্যদিকে বালুরঘাটে দুষ্কৃতীদের দাপাদাপিকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায় একটি গণনা কেন্দ্রের সামনেই৷

এখনও পর্যন্ত ১৫টি জেলা পরিষদ দখল করতে পেরেছে তৃণমূল কংগ্রেস৷

আরও পড়ুন: ‘ভালো ফলের জন্য দিলীপ-মুকুলকে দল থেকে বের করতে হবে বিজেপিকে’

গ্রাম পঞ্চায়েতে বিপুল জয় পেয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ প্রায় ২০ হাজার আসনে জিতেছে তৃণমূল জিতেছে৷ বিজেপি দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও তৃণমূলের থেকে অনেক পিছিয়ে৷ পার্থক্য প্রায় ১৫ হাজারেরও বেশি৷

পঞ্চায়েত সমিতিতেও একই অবস্থা৷ সেখানেও তৃণমূল কংগ্রেস বিপুল পরিমাণ আসন জিতেছে৷ বিজেপি অনেকটা পিছিয়ে থাকলেও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে৷

আরও পড়ুন: বামেদের সরিয়ে পঞ্চায়েতে দ্বিতীয় স্থান বিজেপির, জয়জয়কার তৃণমূলেরই

রাজ্যের অধিকাংশ জেলা পরিষদ দখলের পথে তৃণমূল কংগ্রেস৷ ইতিমধ্যে ১৩টি জেলা পরিষদ দখল করে নিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল৷ বাকি জেলা পরিষদগুলিতেও দখলের পথে তৃণমূল কংগ্রেস৷

----
--