পঞ্চায়েত কাজ করেছে, কিন্তু…

হাওড়া: ঠিক যেন ছোট গল্প। শেষ হয়েও হইল না শেষ। এটাই ছোট গল্পের সংজ্ঞা। রাজ্যে একাধিক পঞ্চায়েতের কাজ নিয়েও পরিস্থিতি খানিকটা একই রকম। স্থানীয়দের মতে, ‘পঞ্চায়েত কাজ করেছে। কিন্তু…’

২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে রাজ্যের পঞ্চায়েতগুলির অবস্থা এবং কাজের খতিয়ান জানতে Kolkata24x7 হাজির হয়েছিল হাওড়া জেলার ডোমজুর ব্লকে। সেখানের দক্ষিণবাড়ি এবং রাজাপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা ঘুরে পাওয়া চিত্র অনুসারে, দুই পঞ্চায়েতই কাজ করেছে। তবে আরও কিছু দরকার ছিল।

এলাকার প্রধান দুই বড় সমস্যা হচ্ছে রাস্তা এবং পানীয় জল। এই দুই সমস্যা সমাধানে পঞ্চায়েতগুলি অগ্রণী হলেও ফল আশানুরূপ হয়নি। তেমনই দাবি স্থানীয়দের। পঞ্চায়েত একটু সচেষ্ট হলেই যাবতীয় সমস্যার সমাধান হয়ে যেতো বলেই দাবি তাঁদের।

- Advertisement -

পঞ্চায়েত নির্বাচন এবং গত পঞ্চায়েতের কাজের খতিয়ানের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে স্থানীয় বাসিন্দা বিপ্লব বাগ বললেন, “পঞ্চায়েত কাজ করেনি এটা বললে ভুল হবে। তবে আরও অনেক কাজ করা যেতো।” ভোট মিটে গেলে নিশ্চয় সবকিছু হয়ে যাবে বলেই মনে করেন সাইকেল মিস্ত্রী বিপ্লব বাগ।

দুই পঞ্চায়েত এলাকার অনেকেরই সমস্যা পানীয় জল এবং রাস্তা নিয়েই। সবাই অবশ্য বিপ্লব বাবুর মতো আশাবাদী নয়। ভাঙা রাস্তা এবং কল মেরামত না হওয়ার জন্য ক্ষোভ রয়েছে পঞ্চায়েতের উপরে। আর এই বিষয়টিকেই হাতিয়ার করেছে বিরোধী শিবির।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে বোঝা গেল যে বামেরাই এখনও ওই এলাকায় প্রধান বিরোধী। গ্রামের যাবতীয় সমস্যা সমাধানের জন্য তারা একটা সুযোগ পেতে চায়। এই প্রতিশ্রুতি দিয়েই ভোট চাইছে রাজ্যের প্রাক্তন শাসকদল। দেশ জড়া মোদী হাওয়ায় ওই এলাকাতেও কিছুটা মাথা তুলেছে পদ্ম ফুল। যদিও গেরুয়া বাহিনীকে বিশেষ পাত্তা দিচ্ছে না দক্ষিণবাড়ি বা রাজাপুরের মানুষ। গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলে তেমনই জানা গেল।

Advertisement ---
-----