জমি বিল নিয়ে মোদীর বিরুদ্ধে ধারাল ‘যুবরাজ’

নয়াদিল্লি: ‘‘আত্মমন্থন’’ সেরে দেশে ফেরার পর সোমবার প্রথম সংসদে পা রাখেন রাহুল গান্ধী৷ প্রথম দিনেই আক্রমণাত্মক রূপ নিলেন তিনি৷ জমি বিলের বিরোধিতা করে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন কংগ্রেসের ‘‘যুবরাজ’’৷ কড়াভাষায় আক্রমণ শানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে৷

এদিন তিনি বলেন, সবদিক থেকেই ব্যর্থ ‘আচ্ছে দিনে’র সরকার৷ যে সরকার আমাদের সবুজ বিপ্লব দিয়েছে তাদের অবহেলা করা হচ্ছে৷ ইউপিএ জমানার সাফল্যের খতিয়ান তুলে রাহুল বলেন, আমাদের সময় কৃষিতে বিকাশের হার ছিল বছরে ২০ শতাংশ৷এখন তা নেমে দাঁড়িয়েছে ৫ শতাংশে৷ গত ১১ মাসে কৃষিতে মাত্র ১ শতাংশ বিকাশ হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। সেইসঙ্গে শাসকদলের প্রতি তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘‘‘আপনারা বড় ভুল করছেন৷ আজ আপনারা কৃষকদের আঘাত করছেন, আগামীকাল কৃষকদের দিক থেকে আপনাদের আঘাত পেতে হবে৷ ’শুধু তাই নয়, মূল্যবৃদ্ধি রুখতে ব্যর্থ হয়েছে ‘আচ্ছে দিনে’র সরকার৷’’’

এদিন লোকসভা অধিবেশনের দ্বিতীয় পর্বের শুরু থেকেই জমি অধিগ্রহণ বিল, সার সংকট, প্রাকৃতিক দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সহায়তা না মেলার ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়ান তিনি। কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে ‘ধনীদের সরকার’ বলেও কটাক্ষ করেন কংগ্রেসের সহসভাপতি৷

- Advertisement -

রাহুল গান্ধী আরও বলেন, কতটা এলাকা বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এটা কি প্রধানমন্ত্রী জানেন? আমার একটা পরামর্শ আছে৷ প্রধানমন্ত্রী কেন নিজে গিয়ে ওই অঞ্চলগুলি ঘুরে দেখছেন না? অকালবৃষ্টিতে ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ অথচ ক্ষতিগ্রস্ত ফসল কিনতে নারাজ সরকার৷ এমনকী, কেন্দ্র কৃষক ও শ্রমিকদের সমস্যা শুনছে না বলেও অভিযোগ করেন রাহুল।

মোদীর বিরুদ্ধে তোপ দেগে রাহুল বলেন, রাজনৈতিক সমীকরণটা তিনি বোঝেন৷ তার জোরেই ভোটে জিতেছেন৷ কিন্তু তিনি যদি সত্যিই রাষ্ট্রনীতি বুঝে থাকেন, তাহলে দেশের ৬০ শতাংশ মানুষ হতাশ কেন?
তিনি আরও বলেন, আমি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতীন গড়করির প্রশংসা করি৷কারণ সত্যি কথাটা বলতে পেরেছিলেন তিনিই৷ গড়করিজি বলেছিলেন, সরকার বা ভগবান, কারও উপরেই কৃষকের ভরসা করা উচিত নয়৷
রাহুলের এদিনের ভূমিকায় উচ্ছ্বসিত কংগ্রেস৷ বলা বাহুল্য, খুশি কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীও৷