মমতার দেখানো পথে টিএমসিপি-তে শুদ্ধিকরণ শুরু করলেন পার্থ

দেবময় ঘোষ, কলকাতা: কিছুদিন আগে মেয়ো রোডে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের মঞ্চ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘‘টাকা দিয়ে চরিত্র নষ্ট করতে নেই৷’’ গীতবিতান থেকে কবিগুরুকে উদ্ধৃত করে তিনি আরও বলেছিলেন, ‘‘তোমার পতাকা যারে দাও তারে বহিবারে দাও শকতি…৷’’

তৃণমূল ছাত্র পরিষদকে শনিবার শুদ্ধিকরণের পথে চালিত করে দলের মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, ‘‘কলেজে বহিরাগতদের জায়গা হবে না৷ যারা ছাত্র নয়, তাদের তৃণমূল ছাত্র পরিষদে জায়গা হবে না৷’’ বার্তা স্পষ্ট৷ মেয়ো রোডে মমতা ছাত্রদের যে পরামর্শ দিয়েছিলেন, তা সম্পূর্ণরূপে প্রতিফলিত হতে গেলে ছাত্র ইউনিট থেকে বেনো জল সাফ করতেই হতো৷ এদিন তৃণমূল কংগ্রেস ভবন থেকে তারই শুভ সূচনা করলেন মহাসচিব৷

তৃণমূলনেত্রী ছাত্র রাজনীতি থেকেই পরিচিতি পেয়েছিলেন৷ তাঁর রাজনৈতিক ভিত্তি তৈরি হয়েছে ছাত্র জীবনেই৷ রাস্তার ধারে যে নেত্রীর বক্তব্য শুনে গাড়ি থেকে নেমে এসেছিলেন সিদ্ধার্থশঙ্কর রায়, তাঁর প্রিয় ‘মানুদা’৷ মমতার তৃণমূল কংগ্রেসের ছাত্র ইউনিটে কোনও সভাপতি বা সভানেত্রী থাকবেন না, তা সাচ্চা তৃণমূলীদের মেনে নেওয়া কঠিন৷ সেদিক থেকে দেখতে গেলে, রাজ্য ও জেলা কমিটিগুলিতে ব্যাপক রদবদল যেন ছিল সময়ের আপেক্ষা, জানালেন এক প্রবীণ ছাত্র নেতা৷

- Advertisement -

কলেজে-কলেজে কারা ভর্তির সময় হাত পেতে টাকা নেয়, কারা বছরের পর বছর কলেজের ইউনিয়ন রুম দখল করে বসে থেকে, কোন ছাত্রছাত্রীরা শিক্ষক-শিক্ষাকর্মীদের হুমকি দেয়, কারা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ভিতর ‘লবি’ বানায়, তা যেন জলের মত পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে৷ মেয়ো রোডের মঞ্চ থেকে সেই কারণেই মমতা যথার্থই বলেছিলেন, ‘‘তোমার পতাকা যারে দাও তারে বহিবারে দাও শকতি…৷’ তবে যা সেদিন তাঁর কন্ঠে শোনা যায়নি, তাও সমানভাবে তাৎপর্যপূর্ণ ছিল, ‘‘…তোমার সেবার মহান দুঃখ সহিবারে দাও ভকতি।’’

নেত্রী নিজেই বলেছিলেন, ‘‘টাকার বিকল্প আছে৷ জীবনের বিকল্প নেই৷ রামকৃষ্ণ বলেছিলেন, টাকা মাটি মাটি টাকা৷’ টাকা দিয়ে চরিত্র নষ্ট করতে নেই৷ জীবনটা অনেক দিনের৷’’ তিনি যে Dedicated ছাত্র নেতাদের চেয়েছিলেন, শনিবার তাঁদের খোঁজেই রাজ্যব্যাপি অভিযান শুরু করলেন পার্থ৷

এদিন মহাসচিব বলেন, ‘‘কলেজে-কলেজে পাস-আউটদের থেকে যাওয়া সুখকর নয়৷ সেক্ষেত্রে দেখতে হবে কবে পাশ করেছেন ওই ছাত্ররা৷ আমি একবার এক ছাত্রকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, ‘কবে পাশ করেছেন?’ বলল, ‘২০১৩ সালে অ্যাডমিশন নিয়েছি৷’ আমি তাকে ফের জিজ্ঞাসা করেছিলাম ‘পাশ করেছেন কী?’ বলল, ‘না, আমি আছি৷!’’ মহাসচিব এদিন দ্ব্যর্থহীন ভাষায় জানিয়েছেন, যারা ছাত্র নয়, তারা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কেউ নয়৷

Advertisement ---
---
-----