বিজেপির ব্যাংক লুঠ হয়েছে! অমিতকে পাল্টা পার্থর

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভোটের স্বার্থেই নাকি অনুপ্রবেশকারীদের পাশে রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অনুপ্রবেশকারীরাই তৃণমূলের প্রধান ভোট ব্যাংক ৷ শনিবার মেয়ো রোডে বিজেপির সভায় শাসক দলকে এমনই কটাক্ষ করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ আর তারই পাল্টা হিসেবে এদিন নদিয়ায় তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, ‘‘বিজেপির কোনও ব্যাংকই নেই৷ নীরব মোদী, বিজয় মালিয়ারা ওদের ব্যাংক লুঠ করেছে৷’’

এদিনের সভায় অমিত শাহ এনআরসি ইস্যুতে একহাত নেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তাঁর দাবি, মমতা দিদি আগে লোকসভায় এনআরসির বিরোধিতা করেছিলেন৷ লোকসভা অচল করে অনুপ্রবেশকারীদরে ফেরত পাঠানোর কথা বলেছিলেন৷ আর এখন উল্টো কথা বলছেন৷ এর থেকেই স্পষ্ট তিনি ভোট ব্যাংক সামলাতেই এসব কথা বলছেন৷ এতে মানুষ বিভ্রান্ত হচ্ছে৷ এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায় দাবি করেন, ‘‘বাংলার মানুষই তৃণমূলের ভোট ব্যাংক৷ মমতা মা-মাটি-মানুষের নেত্রী৷ জনতা যতদিন আছেন মমতা তদ্দিন থাকবেন৷’’

- Advertisement -

অমিত শাহের সভার পর তৃণমূলের তরফে প্রথমে টুইট করে তারপর সাংবাদিক বৈঠক করে ড্যামেজ কন্ট্রোলের চেষ্টা করে৷ পরে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও অমিত শাহের বক্তব্যের বিরোধিতা করেন৷ অমিত শাহের সভাকে ‘ফ্লপ শো’ বলেও এদিন ব্যাখ্যা করে তৃণমূল৷ তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ এদিন অমিত শাহকে ‘‘দুর্নীতির ডাকাত, দাঙ্গার ডাকাত’’ বলেও আখ্যায়িত করেন৷

Advertisement ---
---
-----