স্ত্রীকে ত্যাগ করার অপরাধে পাসপোর্ট বাতিল ৮ অনাবাসীর

নয়াদিল্লি: হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছিল আগেই৷ এবার তার বাস্তবায়ন ঘটালো কেন্দ্র৷ ৮ জন অনাবাসী ভারতীয়ের পাসপোর্ট বাতিল করল নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক৷ অনাবাসী ভারতীয়দের বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা নিজেদের স্ত্রীকে পরিত্যাগ করেছেন ও পালিয়ে গিয়েছেন৷

নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রকের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সঙ্গে সমন্বয় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ এই নিয়ে একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন করা হয়৷ কমিটি সব দিক বিবেচনা করে ও অভিযোগ খতিয়ে দেখে এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করে৷

আরও পড়ুন: ‘তিন মোদী মিলে দেশকে লুটছে’

কমিটি জানায়, এই সব অভিযুক্ত ভারতীয় দেশে নিজেদের স্ত্রীকে রেখে বিদেশে পালিয়ে গিয়েছেন৷ তাঁরা কোনও রকম ভাবে নিজেদের স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন না, দায়িত্ব থেকে তাঁরা সম্পূর্ণ সরে গিয়েছেন৷ এরকম অভিযোগ পাওয়ার পরেই তদন্তে নামে কমিটি৷ তারপরেই পাসপোর্ট বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷

নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রকের কাছে অভিযোগ এসেছিল যে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিয়ের পর কিছুদিন সংসার করেই স্ত্রীকে রেখে চলে গিয়েছেন বেশ কয়েকজন অনাবাসী ভারতীয়৷ এই তদন্তেই একটি যৌথ টাস্কফোর্স গঠন করা হয়৷ কমিটির আধিকারিকরা জানিয়েছেন, গত দুমাসে তারা এ ধরনের ৭০টি অভিযোগ পেয়েছেন। এই ৮ জনের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশও জারি করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন: নারী পাচারকারী সন্দেহে তিনজনকে গণপিটুনি

নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী মানেকা গান্ধী এক সাংবাদিক বৈঠকে জানান, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এনআরআই বিবাহ নথিভুক্ত করতে হবে৷ নয়তো পাসপোর্ট বা ভিসা দেওয়া হবে না। এই কড়া পদক্ষেপ নিয়ে কেন্দ্র বুঝিয়ে দেয় দেশে অনাবাসী বিয়েতে প্রতারণা রুখতে তারা উদ্যোগী। নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এবার থেকে বিয়ের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নথিভূক্ত করাতে হবে। তা না হলে পাসপোর্ট ও ভিসা বাজেয়াপ্ত করা হবে বা ভিসা ইস্যু করা হবে না।

মানেকা গান্ধী বলেন, এখনও অবধি মোট ছ’টি লুক আউট নোটিশ জারি করা হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচটি কেসে পাসপোর্ট বাতিল করে দিয়েছে বিদেশ মন্ত্রক। এ ছাড়া নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক থেকে রেজিস্টারদের কাছে এই সব বিয়ের তথ্য চাওয়া হয়েছে। এই সব তথ্যের ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় ডাটাবেস তৈরি করা হবে বলে জানান মানেকা গান্ধী।

আরও পড়ুন: কোষাগার-কাণ্ডে রাজসাক্ষী পেয়ে স্বস্তিতে পুলিশ

----
-----