কাদোভার অগ্ন্যুৎপাতে বিপর্যস্ত নিউ গিনি পাপুয়া

পোর্ট মর্সবি: শুক্রবার থেকে অগ্নুৎপাত শুরু হয়েছে পাপুয়া নিউ গিনিতে৷ ক্রমশ পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে৷ দেড় হাজার আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দা বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিয়েছেন৷

আমেরিকান দাতব্য সংস্থা সামারিটান অ্যাভিয়েশন জানিয়েছে, কাদোভার দ্বীপের ৫০০-৬০০ বাসিন্দাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ সংস্থাটি নিরাপদ জায়গায় স্থানীয়দের সরে যাওয়ার কাজে সহায়তা করছে৷ ডারউইন ভলকানিক অ্যাশ অ্যাডভাইসরি সেন্টারের কর্মকর্তা ও ব্রায়েন জানিয়েছেন, আগ্নেয়গিরি থেকে নির্গত ছাই বিমান চলাচলে কোন বাধা বা ঝুঁকির সৃষ্টি করবে না।

স্থানীয় রেড ক্রশ সোসাইটি জানিয়েছে পাপুয়ার মূল ভূখন্ড থেকে মাত্র ২৪ কিমি দূরে কাদোভার দ্বীপের এই আগ্নেয়গিরির অবস্থান৷ স্থানীয় বাসিন্দারা মূলত অন্যান্য দ্বীপ ও পাপুয়ার মূল দ্বীপে চলে যাচ্ছেন৷ এই পরিস্থিতির মোকাবিলায় রেড ক্রশের পক্ষ থেকে ২৬,২৭৪ মার্কিন ডলার সহায়তা করা হচ্ছে বলে প্রশাসন সূত্রে খবর৷ ক্ষতিগ্রস্থদের খাদ্য, আশ্রয়, পানীয় জল ও জামা কাপড় দেওয়া হচ্ছে৷

- Advertisement -

সামারিটান অ্যাভিয়েশন তেকে পাওয়া শেষ খবর অনুযায়ী লাভাস্রোত সমুদ্রে গিয়ে পড়েছে, যেখান থেকে কালো ধোঁয়া সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৬০০ মিটার ওপরে কুন্ডলী পাকিয়ে উঠেছে৷ এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে অস্ট্রেলিয়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৯,৭৭৫ মার্কিন ডলারের আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করা হয়েছে৷

শেষ কবে এই কাদোভার আগ্নেয়গিরি থেকে অগ্ন্যুৎপাত হয়েছে, তা মনে করতে পারছেন না ম্যাককোয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আগ্নেয়গিরি বিশেষজ্ঞরা৷ তবে ১৭ শতকে একটি ভ্রমণ বিষয়ক ম্যাগাজিনে এর উল্লেখ রয়েছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা৷

Advertisement ---
---
-----