এলাকাবাসীর উদ্যোগে প্রাণে বাঁচল বিরল প্রজাতির বনবিড়াল

স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: মানবিকতার পরিচয় দিল দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুর থানার পদ্ম পুকুর মোড়ের এলাকাবাসী৷ তাঁদের উদ্যোগে প্রাণে বাঁচল বিরল প্রজাতির একটি বনবিড়াল৷ গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার হওয়া বনবিড়ালটিকে চিকিৎসার জন্য আপতত নরেন্দ্রপুরের চিন্তামণি কর বার্ড স্যন্চুরিতে রাখা হয়েছে৷ বিড়ালটি সুস্থ হলে কোনও একটি সুরক্ষিত বনাঞ্চলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানান হয়েছে৷

স্থানীয় বাসিন্দা কৌস্তভ মুখোপাধ্যায় তার বাড়ির পিছনে প্রচণ্ড পরিমাণে কুকুর ডাকতে দেখেন৷ কী কারণে এতো পরিমাণে কুকুর ডাকছে তার কারণ খতিয়ে দেখতে বাড়ির পিছনে যান তিনি৷ সেখানে গিয়ে তিনি দেখেন একটি বনবিড়াল৷ স্থানীয় ভাষায় যাদের বলা হয় ভামবিড়াল৷ সেটিকে কয়েকটি কুকুর মিলে এক নাগাড়ে কামড়াচ্ছে৷ তড়িঘড়ি করে তিনি নিজেই উদ্যোগী হয়ে কুকুরগুলিকে তাড়িয়ে দেন৷

এরপর স্থানীয় বাসিন্দা তথা পরিবেশ ও বন্যপ্রাণ প্রেমী দেবমাল্য চট্টোপাধ্যায়কে খবর দেন৷ দেবমাল্য বাবু এসে দেখেন কুকুরের কামড়ে গুরুতর জখম হয়েছে বিড়ালটি৷ এমনকি প্রাণীটির শরীরের বিভিন্ন জায়গা থেকে রক্ত ঝড়ছে৷ তিনি এই বিষয়ে স্থানীয় বনকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন৷ বন কর্মীরা এসে ওই বিড়ালটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়৷

- Advertisement -

বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, ভাম বিড়ালটি গুরুতর জখম হয়েছে৷ প্রাণীটিকে বাঁচাতে চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ আগামী দু একদিনের মধ্যেই সে সুস্থ হয়ে উঠবে৷ তারপর তাকে কোনও একটি সুরক্ষিত বনাঞ্চলে ছেড়ে দেওয়া হবে৷ এই বিরল প্রজাতির প্রাণীটির প্রাণ বাঁচাতে পেরে খুশি বারুইপুরের এই দুই বাসিন্দা৷

Advertisement
---