ইসলামাবাদ: ভারত-পাক সম্পর্কের সমস্যার মাঝেই উঠে এল এক চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ একটি সংবাদ সূত্রের খবরে জানা যায়, ২০০১সালে ভারতীয় সংসদে জঙ্গি হামলার পর, পরমাণু অস্ত্র হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল বলে জানান পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশারফ৷ কিন্তু ভারতের পাল্টা জবাবের ভয়ে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা থেকে পিছিয়ে আসা হয় বলেও জানান মোশারফ৷

আরও পড়ুন: প্রেসিডেন্টের নির্দেশ পেলে আগামী সপ্তাহেই পরমাণু হামলা চিনে

Advertisement

সূত্রের খবর, মোশারফ এই চাঞ্চল্যকর তথ্য তুলে ধরে জানান যে, ২০০১সালে ভারতের সংসদে জঙ্গি হামলাকে কেন্দ্র করে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে চলা সমস্যাকে ভিত্তি করেই ভারতের বিরুদ্ধে এই পরমাণু হামলার ছক কষেছিল পাকিস্তান, কিন্তু ভারতের প্রত্যুত্তরও যে সাংঘাতিক হবে সে কথা ভেবেই এই হামলা থেকে বিরত হয় পাকিস্তান৷

আরও পড়ুন: আমেরিকা পরমাণু চুক্তি ভাঙলে ইরানও প্রত্যুত্তর দেবে

২০০২ সালে ভারত-পাক সম্পর্ক এমনই জায়গায় পৌঁছে যায় যখন পারমাণবিক হামলার সম্ভাবনার কথাও উড়িয়ে দেওয়া যায়নি বলে জানান মোশারফ৷ তিনি আরও জানান, পাকিস্তান বা ভারত কারও কাছেই মিসাইলে পরমাণু হাতিয়ার না থাকায় এধরনের হামলার জন্য ১ থেকে ২ দিন সময় লাগার কথা৷ এই ধরনের মিসাইল হামলার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছিল কি না, এই প্রশ্নের উত্তরে মোশারফ জানান, পাকিস্তান এমন কিছু করেনি এবং তিনি ঈশ্বরকে ধন্যবাদ দেন কারণ ভারতও এই ধরনের কোনও পদক্ষেপ নেয়নি বলে৷

আরও পড়ুন: পরমাণু বাহিনীর শক্তি বাড়ানোর পথ থেকে এই ইঞ্চিও সরে আসবে না উত্তর কোরিয়া

প্রসঙ্গত, ২০০১-২০০৮ সাল পর্যন্ত পাক প্রেসিডেন্টের পদ সামলান আর্মি জেনারেল পারভেজ মোশারফ৷ ২০০৭সালে প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে৷ তবে ২০১৬সালে তিনি পাকিস্তান থেকে দুবাই যাওয়ার অনুমতি পান চিকিৎসার জন্য৷

----
--