পাইলটের গাফিলতিতেই ভেঙে পড়েছে বিমান

মস্কো: গত এগারোই ফেব্রুয়ারি রাশিয়ায় মাঝ আকাশ থেকে ভেঙে পড়ে বিমান৷ অবশেষে সেই বিমান দুর্ঘটনার কারণ জানা গেল৷ জানা গেছে এই বিমান দুর্ঘটনার পিছনে রয়েছে পাইলটের গাফিলতি৷ তাঁর ভুলেই ভেঙে পড়েছে বিমান৷ তিনিই দায়ি এই পুরো দুর্ঘটনার৷

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, বিমান চালক বিমানের ‘হিটিং ইউনিট’ বন্ধ করতে পারেননি৷ এরফলে বিমানচালক ভুল তথ্য পেতে শুরু কেরছিলেন বিমান চালানোর সময়৷ যার ফলেই এই মারাত্মক পরিনতি হয়৷ রাশিয়ার আন্তর্জাতিক বিমান সমিতির তরফে নিউইয়র্ক পোস্টকে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানা গেছে, “বিমানে যদি বিশেষ বা আপৎকালিন পরিস্থিতি তৈরি হয় সেক্ষেত্রে বিমানের ইন্ডিকেটর ভুল তথ্য দেওয়া শুরু করে৷ এক্ষেত্রেও সেটাই হয়েছিল৷ বিমানচালক ওই পরিস্থিতিতে ভুল তথ্য পেয়েছেন৷”

অন্যদিকে বিমানের তাপমাত্রা বাডা়নোর মেশিনটি বন্ধও হয়ে গিয়েছিল বলে জানা গেছে৷ আরও জানা গেছে এই বিমানটি আকাশে ১৩০০ মিটার ওপরে ওঠার মাত্র দু মিনিট ৩০ সেকেন্ড পর থএকেই বিমানে এই জরুরি অবস্থা তৈরি হতে শুরু করে৷ এরপরই ভুল তথ্য দেওয়া শুরু করে বিমান৷ ইন্ডিকেটর বিমান চালককে জানাতে থাকে বিমানটির গতিবেগ ৪৬৫-৪৭০ কিমি প্রতি ঘন্টা৷ বিমানকে মাটিতে ফিরিয়ে আনার সময় বিমানের দুই সেন্সর এর একটিতে বিমানের গতিবেগ শূণ্য দেখাচ্ছিল৷ অপরটিতে গতি দেখাচ্ছিল ৮০০ কিমি প্রতি ঘন্টা৷

রাশিয়ার আন্তর্জাতিক বিমান সমিতি বিমানের ককপিটে হওয়া কথাবার্তার রেকর্ডিং হাতে পেয়ে গেলেও তার পরীক্ষা নিরীক্ষা করা এখনও বাকি রয়েছে৷ সূত্রের খবর বিমানের উড়ান সুরক্ষার নিয়ম ও বিমান সঞ্চালন নিয়ম মানা হয়নি এই অভিযোগে একটি অপরাধের মামলা রুজু করা হয়েছে৷ ১১ই ফেব্রুয়ারি স্ত্রোভ এয়ারলাইন্সের এই অ্যান্টোনোভ এ-১৪৪কে বিমানটি রাশিয়ার আকাশে ওড়ার পরই আকাশ থেকে ভেঙে পড়ে মাটিতে৷ বিমানে থাকা ৭১জন যাত্রীরই মৃত্যু হয়৷ মস্কো অঞ্চলের রামসেসকি জেলায় পাওয়া দুর্ঘটনা বিমানটির ধ্বংসাবশেষ মস্কোর রামসেস্কি এলাকা থেকে পাওয়া যায়৷ মস্কোর এর ডোমোডোভো বিমানবন্দর থেকে ওর্স্ক পর্যন্ত যাচ্ছিল এই বিমানটি৷ আকাশে ওড়ার পরই ভেঙে পড়ে৷

Advertisement
----
-----